Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ০৯ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩২
আপডেট : ০৯ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৭

সরকারি জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা, বাধা দেওয়ায় হামলা

সরকারি জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা, বাঁধা দেওয়ায় হামলা
সরকারি জমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে সরকারি বনের জমি জবর-দখল করে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা নির্মাণে বাধা দিতে গিয়ে বার বার হামলার শিকার হচ্ছেন ভূমি অফিস ও বন বিভাগের লোকজন। এ-সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে হামলার শিকার হয়েছেন সাংবাদিকরাও। ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে টাকা, দুটি পরিচয়পত্র, দুটি ল্যাপটপ ও একটি ক্যামেরা। এ বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) রাতে বন বিভাগ ও সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে একটি বন মামলা, উপজেলা নির্বাহী কার্যালয় ও থানায় পৃথক তিনটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

এলাকাবাসী, ভূমি অফিস ও বন অফিস সূত্রে জানা গেছে, কালিয়াকৈর উপজেলার রাখালিয়াচালা গেসুরটেক এলাকায় গত বৃহস্পতিবার বিকেলে এ হামলার ঘটনা ঘটে। মৌচাক বিট অফিসের আওতায় ওই এলাকায় বনবিভাগের প্রায় ১০ একরের বেশি বনের জমি রয়েছে। যার বর্তমান বাজার মূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকার বেশি। কিন্তু দিন দিন ওই জমিতে নির্মাণ করা হচ্ছে ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা।

স্থানীয় ইয়াছিন, শাহিন, মানিক, আ. বারেক, আমির মুন্সী, হামিদ মোল্লা, ময়নাল, সিরাজ, শাহ আলম, জাকির, নাছির, ডেইজি আক্তারসহ ১৪ থেকে ১৫ জনের একটি ভূমিদস্যু সিন্ডিকেট দল তৈরি করে। পরে তারা চুক্তির মাধ্যমে স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে ওই জমিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ বাবদ ৫০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকা নেয়। এ ছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে বনের জমি প্লট করে বিক্রির অভিযোগ রয়েছে। এরপর ভূমিদস্যু সিন্ডিকেট দল টাকা ভাগ-ভাটোয়ারা করে। বন বিভাগের লোকজন এসব অবৈধ স্থাপনা নির্মাণে বাধা দিতে গেলে ওই ভূমিদস্যু সিন্ডিকেটের খপ্পরে পড়ে একাধিকবার হামলার শিকার হয়েছেন। সম্প্রতি ওই ভূমিদস্যু চক্রের সঙ্গে মোটা অংকের টাকা চুক্তির মাধ্যমে বনের জমিতে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানসহ প্রায় ১৫ থেকে ২০টি অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে। এমন খবর পেয়ে গত বুধবার সকালে বন বিভাগের লোকজন সেখানে গিয়ে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণে বাধা দেয়। মুহূর্তের মধ্যে ওই ভূমিদস্যু সিন্ডেকেটের দল তাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে মারধর করে। তাদের হামলায় মৌচাক বিট কর্মকর্তাসহ ওই অফিসের সাতজন আহত হন।

এ ঘটনায় বিট কর্মকর্তা মশফিকুর রহমান মানিক বাদী হয়ে ২৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৩০ থেকে ৩৫ জনের নামে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পরের দিন বৃহস্পতিবার দুপুরে সফিপুর ইউনিয়ন ভুমি অফিস ও মৌচাক বিট অফিসের লোকজন সেখানে যান। কিন্তু সেখানে পৌঁছানো মাত্রই আবারও ওই ভূমিদস্যু সিন্ডেকেট দল স্থানীয় বেশকিছু লোকজন নিয়ে ভূমি ও বন অফিসের লোকজন অবরুদ্ধ রেখে হামলার চেষ্টা করা হয়। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সাত থেকে আটজন সাংবাদিক সেখানে তথ্য সংগ্রহ করতে যাওয়ার আগেই পুলিশ গিয়ে অবরুদ্ধদের উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এসময় তথ্য সংগ্রহ করতে সাংবাদিকরা সেখানে পৌঁছানো মাত্রই ওই ভূমিদস্যু সিন্ডিকেট দল তাদের উপর হামলা চালায়। ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে সব মিলিয়ে ৪০ হাজার ৩৫০ টাকা, তিনটি পরিচয়পত্র, ডেল কোর আই-৫ দুটি ল্যাপটপ ও একটি ক্যামেরা। আহত হন পাঁচজন সাংবাদিক। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে। এ ঘটনায় বন অফিসের পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে কালিয়াকৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

সফিপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের নায়েব আবদুল আলীম আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, প্রকৃতপক্ষে বনের জমি কি না, বিষয়টি দেখতে উপজেলা ভূমি অফিস আমাদের সেখানে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সেখানে যাওয়া মাত্রই আমাদের অবরুদ্ধ করা হয়।

মৌচাক বন বিটের কর্মকর্তা মশফিকুর রহমান মানিক আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, ওই বনের জমিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণে যতবার বাধা দিতে গিয়েছি, ততবারই হামলার শিকার হয়েছি।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, বন বিভাগের লোকজন ও সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় পৃথক দুটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ আরটিভি নিউজকে বলেন, অবগত হয়েছি। তবে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কাজী মো. নুরুল করিম আরটিভি নিউজকে জানিয়েছছেন, বন বিভাগের লোকজনের ওপর হামলার বিষয়ে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ছাড়া বনের জমিতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের ব্যবস্থা করা হবে।

এমআই/টিআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS