Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

আইপিএল নিয়ে রমরমা জুয়ার আসর

আইপিএল নিয়ে রমরমা জুয়ার আসর
ফাইল ছবি

শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ায় আইপিএল নিয়ে চলছে রমরমা জুয়া বাণিজ্য। সন্ধ্যা হলেই চায়ের দোকান থেকে শুরু করে বিভিন্ন অলিতে-গলিতে চলে এ জুয়ার আসর।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ায় লাখ লাখ লোকের বসবাস। এর মধ্যেই সিংহ ভাগই পোশাক শ্রমিক। আইপিলে জুয়ার নেশায় আসক্ত হয়ে সর্বস্ব খোয়াচ্ছেন পোশাক শ্রমিক থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। প্রতিরাতে এ অঞ্চলের বিভিন্ন চায়ের দোকান থেকে শুরু করে পাড়া-মহল্লা ও হোটেল রেস্তোরায় চলে এ জুয়ার আসর। বিশেষ করে এ জুয়ার আসর জমে সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত।

এ জুয়ার পিছনে প্রতিটি পাড়া মহল্লায় রয়েছে কিছু প্রভাশালী মহল ও বড় বড় সিন্ডিকেট। এসব সিন্ডিকেটের কাছ থেকেই ম্যাচ কেনাবেচা হয়। এদের কাছ থেকে ১ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত ম্যাচ কেনাবেচা হয়। আর ম্যাচ জয়ী ব্যক্তির কাছ থেকে এই সিন্ডিকেট শতকরা হিসেবে ৫০ থেকে ১০০ টাকা নিয়ে থাকে।

স্থানীয় এলাকাবাসী আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, প্রতিদিন রাতে বিভিন্ন দোকানে দোকানে, অলিতে-গলিতে এ জুয়ার আসর চলে। আবার ফোনে ফোনে অনেকে আইপিলের ম্যাচ বেচাকেনা করে থাকে। এতে লাভবান হচ্ছে এলাকার কিছু অসাধু সিন্ডিকেট ও এলাকার কিছু প্রভাবশালী মহল। এর ফলে সব হারাচ্ছেন পোশাক শ্রমিক থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। অবিলম্বে এই জুয়া খেলা বন্ধ করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে এলাকাবাসী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক পোশাক শ্রমিক আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, বেতনের প্রায় সব টাকায় চলে যাচ্ছে এই আইপিলের জুয়া। বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে প্রথমে অল্প টাকায় ম্যাচ ধরলেও পরে তা বড় অংকে টাকায় চলে যায়। জুয়ার নেশায় আসক্ত হয়ে বেতনের সব টাকাই খোয়াচ্ছেন অনেকে।

পোশাক শ্রমিকরা আরটিভি নিউজকে আরও বলেন, ইতিমধ্যেই আইপিলের জুয়ার নেশায় পড়ে অনেকে টাকার দেনা হয়েছি। সিন্ডিকেট গুলোর কাছে থেকে লাভেও টাকা নিয়েছেন অনেকে। এসব টাকা পরিশোধ করতে গেলে অনেক শ্রমিক বাসা ভাড়াও দিতে পারবেন না এবং সংসার চালাতেও হিমশিম অবস্থায় পড়তে হয়েছে।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার পরিদর্শক আব্দুর রশিদ আরটিভি নিউজকে জানিয়েছেন, বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এমআই

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS