Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৩ আশ্বিন ১৪২৮

কিস্তির টাকা না দেয়ায় গ্রাহকের হাত ভাঙলেন এনজিও কর্মকর্তা

কিস্তির টাকা না দেয়ায় গ্রাহকের হাত ভাঙলেন এনজিও কর্মকর্তা
গ্রাহকের হাত ভাঙলেন

নোয়াখালী পৌর এলাকায় কিস্তির টাকা না পেয়ে এক গ্রাহককে পিটিয়ে হাত ভেঙে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে দুই এনজিও কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নোয়াখালী পৌরসভার গোপাই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত সোসাইটি ফর সোস্যাল সার্ভিসের (এসএসএস) শাখা ব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন ও কিস্তি আদায়কারী গোলাম কিবরিয়ার উপযুক্ত বিচার দাবি করেছেন ভুক্তভোগী মো. বাদশার স্ত্রী ফাতেমা বেগম।

আহত মো. বাদশাকে (৩৫) নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দিনমজুর মো. বাদশা জানান, গত ২০২০ সালের আগস্ট মাসে এসএসএস এনজিওর উজিয়ালপুর সদর শাখা থেকে ৩০ হাজার টাকা কিস্তি গ্রহণ করেন তিনি। নিয়ম অনুযায়ী, প্রতি সপ্তাহে ৮০০ টাকা করে ৪৬ কিস্তিতে মোট ৩৬ হাজার ৩০০ টাকা পরিশোধ করতে হবে। গত কয়েক মাসে কিস্তির টাকার ৮০ ভাগের বেশি টাকা পরিশোধ করেন তিনি।

তিনি বলেন, বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) বেলা দেড়টার দিকে এনজিওর শাখা ব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন ও কিস্তি আদায়কারী গোলাম কিবরিয়া তার বাড়িতে আসেন। তার হাতে টাকা নেই, তবু তাদের ঘরে বসতে বলেন তিনি। কিছু সময় অতিবাহিত হলে উত্তেজিত হয়ে পড়েন এনজিও কর্মকর্তারা। কিছুক্ষণের মধ্যে টাকা এলে দেওয়া হবে জানালে তার সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন ওই কর্মকর্তারা।

ফাতেমা জানান, বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) টাকা না থাকায় সাপ্তাহিক কিস্তির ৮০০ টাকা দিতে পারিনি। এতে উত্তেজিত হয়ে পড়েন এনজিও কর্মকর্তারা। অল্প সময়ের মধ্যে টাকা আসলে দেয়া হবে জানালেও তারা স্বামীর সঙ্গে বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন তারা। একপর্যায়ে তাকে মারধর করে হাত ভেঙে দেন ওই কর্মকর্তারা।

এ বিষয়ে কথা বলতে বৃহস্পতিবার (৯ সেপ্টেম্বর) এসএসএস উজিয়ালপুর নোয়াখালী সদর শাখায় গিয়ে শাখা ব্যবস্থাপক আলমগীরকে অনুপস্থিত পাওয়া যায়।

কিস্তি আদায়কারী গোলাম কিবরিয়া জানান, বাদশা তাদের সঙ্গে খারাপ আচারণ করায় অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে।

জিএম

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS