Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১২ শ্রাবণ ১৪২৮

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৭ জুলাই ২০২১, ২০:০৮
আপডেট : ১৭ জুলাই ২০২১, ২০:১৫

ট্রেনে কাটা পড়ে মায়ের মৃত্যু, বেঁচে গেলো কোলের শিশু

ট্রেনে কাটা পড়ে মায়ের মৃত্যু, বেঁচে গেলো কোলের শিশু
বেঁচে গেলো কোলের শিশু

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ট্রেনে কাটা পড়ে মারা গেলেন এক গৃহবধূ। কোলে ছিল ২২ মাসের শিশু সন্তান। ট্রেনের নীচে পরে মহিলাটি তিন টুকরা হয়ে মারা গেলেও অলৌকিকভাবে বেঁচে যায় কোলের শিশুটি।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) দুপুর দেড়টার দিকে কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলার শম্ভুপুর রেলক্রসিং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত শিশু বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। শিশুটির বুকের ৫টি হাড় ভেঙে গেছে। এখনো জ্ঞান ফেরেনি তার।

নিহত আকলিমা খাতুন (২৬) ভৈরব উপজেলার কুলিয়ারচর আহম্মদপুর গ্রামের এবাদত শেখের মেয়ে। শিশুটির পিতা-মাতা কৃলিয়ারচরের একটি রাইস মিলে শ্রমিকের কাজ করেন।

ময়মনসিংহ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আয়েশা হক আরটিভি নিউজকে জানান, ভৈরব প্রশাসন থেকে বিষয়টি জানানোর পর জেলা প্রশাসক এনামুল হক শিশুটির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। একই সঙ্গে জেলা প্রশাসন থেকে চিকিৎসার প্রয়োজনীয় সকল ব্যয় বহন করার নির্দেশ দেন। আহত শিশুর খোঁজ নিতে নিয়মিত যোগাযোগ করছেন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে। তিনি শিশুটির দেখভাল করার দায়িত্ব দেন জেলা প্রশাসনের সিডিএম কোর্টের প্রবেশন কর্মকর্তা ফাতেমাতুজ জোহরার নিকট।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক শফিকুল বারি তুহিন আরটিভি নিউজকে জানান, আহত শিশুর অবস্থা খুবই সংকটাপন্ন। বুকের পাঁজরের ৫টি হাড় ভেঙে গেছে এবং ফুসফুসে রক্ত জমাট বেধে যাওয়ায় তাকে অক্সিজেন এবং স্যালাইন দিয়ে রাখা হয়েছে।

অন্যদিকে এই খবর পেয়ে শিশুটির পিতা বাবুল মিয়া ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছুটে আসেন। এ সময় শিশুটির আরোগ্য কামনায় দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেন।

এ বিষয়ে ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি ফেরদৌস আহমেদ আরটিভি নিউজকে জানান, ট্রেনে কাটা পড়ে গৃহবধূ মারা গেলেও তার কোলে থাকা ২২ মাসের মেয়ে শিশুটি বেঁচে যায়। প্রথমে আহত শিশুকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছিল। পরে সেখানে শিশুটির অবস্থা গুরুতর হওয়ায় চিকিৎসক তখনই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। গৃহবধূর মরদেহ ময়নাতদন্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জিএম

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS