Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮

সিলেট প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৪ জুলাই ২০২১, ১২:০৩
আপডেট : ১৪ জুলাই ২০২১, ১২:৩১

সেই ভুয়া সাংবাদিক গ্রে'প্তার 

সেই ভুয়া সাংবাদিক গ্রেপ্তার 
ফাইল ছবি

সিলেট সদর উপজেলার পীরের বাজার থেকে ফয়ছল কারি (৪০) নামে এক কথিত সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৯।

মামলার প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) দিনগত রাতে র‌্যাবের একটি দল তাকে গ্রেপ্তার করে। এর আগে গত রোববার রাতে সিলেট নগরের শাহপরান থানায় তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ।

বুধবার (১৪ জুলাই) সকালে র‌্যাব-৯ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সামিউল আলম আরটিভি নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সিলেট মহানগর পুলিশ সূত্রে জানা যায়, লকডাউন চলাকালে গত ৯ জুলাই বিকেলে সিলেট-তামাবিল সড়কের সুরমা গেট এলাকায় তিন আরোহী নিয়ে চলায় ফয়ছল কাদিরের মোটরসাইকেল আটক করে পুলিশ। এ সময় তার মাথায় হেলমেট ছিল না এবং আটকের পর মোটরসাইকেলের কাগজপত্র এবং নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্সও দেখাতে পারেনি তিনি। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ফেসবুক লাইভ করেন ফয়ছল।

এ দিকে লাইভের ভিডিওটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। ওই ভিডিওতে দেখা যায়, ফয়ছল ঘটনার সময় পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এবং সাংবাদিককে ফোন করে এই ঘটনা জানাচ্ছেন। এ সময় চেকপোস্টের দায়িত্বে সার্জেন্ট মো. নুরুল আফসারকে বলতে শোনা যায়, আপনার গাড়িতে ৩ জন তুলছেন কেনো? গাড়ির কাগজ কই? ড্রাইভিং লাইসেন্স কই? এসব প্রশ্নের জবাবে ফয়ছল বলেন, আমার গাড়ির সেল রিসিট আছে। আমি অসুস্থ।

একটি জরুরী নিউজের খবর পেয়ে তাড়াহুড়ো করে বের হয়েছি। তাই এটি সঙ্গে আনতে পারিনি। একটু সময় দিলে নিয়ে আসবো। এ সময় সার্জেন্ট নুরুল লাইভ ক্যামেরার সামনে মুখ নিয়ে একাধিকবার বলেন, সাংবাদিক বলে কী সবকিছু মাফ? এই লাইভ ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ার পর ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। ফেসবুক লাইভেই অনেকে ফয়সাল কাদিরের আচরণের নিন্দা করে মন্তব্য করেন।

ওই দিন ঘটনাস্থলে দায়িত্ব পালন করা এক পুলিশ সদস্য আরটিভি নিউজকে বলেন, মোটরসাইকেল আটকের পর ফয়ছল কাদির নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে পুলিশের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন এবং মোটর সাইকেল ছাড়িয়ে নিতে চান। এতে ব্যর্থ হয়ে তিনি ফেসবুকে লাইভ করা শুরু করেন। তার মোটরসাইকেলটি ওইদিন আটক করে নিয়ে আসা হয়েছে।

এর পরদিন জরিমানা দিয়ে মোটরসাইকেলটি ছাড়িয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানায় পুলিশ। এই ঘটনায় গত রোববার রাতে ফয়ছল কাদিরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন ওই দিন মোটরসাইকেল আটককারী সার্জেন্ট মো. নুরুল আফসার ভূঁইয়া।

মামলার এজাহারে তার বিরুদ্ধে ফেসবুকে বিভিন্ন মিথ্যা তথ্য সরাসরি প্রচার করে অস্থিরতা, বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলার রাতেই ফেসবুকে পিকে টিভি পেজ থেকে দেয়া একটি লাইভে ফয়ছল কাদির বলেন, ‘ওই দিন আমি অসুস্থ ছিলাম। একটি পারিবারিক ঝামেলার কারণে আমার মন-মানসিকতাও ভালো ছিল না। তাই কিছু উল্টাপাল্টা ব্যবহার করে ফেলেছি। পুলিশ সদস্যদের মনে কষ্ট দিয়েছি। এ জন্য আমি ক্ষমা-প্রার্থী। সবাই আমাকে ক্ষমা করে দেবেন।’

জিএম

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS