Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ১ আষাঢ় ১৪২৮

পঞ্চগড় সংবাদদাতা, আরটিভি নিউজ

  ০৬ জুন ২০২১, ১০:০২
আপডেট : ০৬ জুন ২০২১, ১০:০৮

সিজারের পর দেখা গেল শিশুর পা ভাঙা

সিজারের পর দেখা গেল শিশুর পা ভাঙা
ফাইল ছবি

পঞ্চগড়ের সিজারের পর শিশুর পা ভাঙা দেখা দিয়েছে। গত বুধবার (২ জুন ) রাতে ঘটনাটি ঘটেছে পঞ্চগড়ের রওশন ক্লিনিক অ্যান্ড জেনারেল হাসপাতালে। বর্তমানে শিশুটি ওই ক্লিনিকে মায়ের সাথে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ক্লিনিক মালিকের কাছে শিশুটির পরিবারের দাবী ভাঙা পায়ের সঠিক চিকিৎসা দিয়ে শিশুটি তাদের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া।

শিশুটির বাবা বিপুল (২৫) জানায়, গত বুধবার (২ জুন) সন্ধ্যায় তার স্ত্রীকে ক্লিনিকে ভর্তি করেন সিজারের জন্য। ওই রাতেই তার স্ত্রী মেরিনা আকতারের সিজার হয়। সিজারের পরদিন শিশুটি অনবরত কান্না করছিল। এভাবেই কেটে যায় দুদিন। পরে গত শুক্রবার (৪ জুন) সকালে ডা. খালেদ তৌহিদ পুলক ক্লিনিকে এসে শিশুর পায়ে ব্যান্ডেজ লাগিয়ে দেওয়ার পর শিশুর কান্না থেমে যায়।

তার অভিযোগ, সিজারের সময় চিকিৎসক তার সন্তানের পা ভেঙে ফেলেছেন।

বিপুল বলেন, আমি গরীব ও অসহায়, সরকারের দেওয়া আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাস করছি। অন্যের কাছে অটো রিকশা চুক্তিতে নিয়ে সারাদিন পরিশ্রম করে সামান্য টাকা রোজগার করি। বর্তমানে আমার পক্ষে আমার মেয়ে শিশুটির পা ভাঙার চিকিৎসার খরচ যোগানো অসম্ভব। আমি আমার সদ্য জন্ম নেওয়া মেয়ে শিশুটিকে সুস্থ দেখতে চাই।

ক্লিনিকের পরিচালক আকতার হোসেন জানান, বুধবার রাতে ডা. খালেদ তৌহিদ পুলক ও পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের জুনিয়র কনসালট্যান্ট (এনেসথেসিয়া) ডা. মনসুর আলম যৌথভাবে সঠিক নিয়মে ওই নারীর অপারেশন (সিজার) করেছেন। শিশুটির জন্মের পরদিন আমরা নিশ্চিত হয়েছি শিশুটির একটি পায়ে ক্ষত হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে শিশুটির কোমরের নিচের অংশে ভেঙে যেতে পারে। আসলে ওই নারীর তৃতীয়বারের মতো সিজার করেছেন। তার চিকিৎসার জন্য সব রকম ব্যবস্থা করা হয়েছে। আগামী বৃহস্পতিবার (১০ জুন) শিশুটিকে অর্থোপেডিক চিকিৎসকের চিকিৎসা দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে ডা. খালেদ তৌহিদ পুলক মুঠোফোনে জানান, এই ধরনের শিশুর পা ভাঙা নিয়ে জন্ম নেওয়া একটি দুর্লভ ঘটনা। এছাড়াও সিজারের সময় দেখা গেছে শিশুটির অবস্থান উল্টো। তবে আশংকার কিছু নেই। যথাযথ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS