logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ৬ বৈশাখ ১৪২৮

দোকান বন্ধ রাখতে বলায় ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে অশালীন আচরণ, সড়ক অবরোধ 

দোকান বন্ধ রাখতে বলায় ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে অশালীন আচরণ, সড়ক অবরোধ 

লকডাউনের সময় কাপড় দোকান খোলা থাকায় দোকানদারদেরকে সতর্ক করায় পঞ্চগড় সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আমিনুল ইসলামের সাথে অশালীন আচরণ করেছে কাপড় ব্যবসায়ীরা।

সোমবার (৫ এপ্রিল) বিকেলে জেলা শহরের কাপড় বাজারের আলহাজ এর দোকানে এই ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, লকডাউনের মধ্যেও দোকান খোলা রাখায় পঞ্চগড় বাজারের আলহাজ ক্লথ স্টোরে জরিমানা করতে চাইলে আশপাশের দোকানদার ও কর্মচারীরা ছুটে আসে। এসময় কয়েক মিনিটের মধ্যেই দোকান খোলা রাখার দাবিতে পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়ক প্রায় একঘণ্টা অবরোধ করে রাখে বস্ত্র ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা। কয়েকশ বস্ত্র মালিক ও কর্মচারীরা মহাসড়কসহ করতোয়া সেতুর উত্তর প্রান্তে বাঁশ ফেলে অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে। বিক্ষোভকারীরা সড়কে আগুন জ্বালিয়ে মিছিল করতে থাকে।

বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, সরকার লকডাউন ঘোষণা করলেও পঞ্চগড়ে সব চলছে স্বাভাবিক নিয়মে। বালু পাথর পরিবহণসহ বিভিন্ন যানবাহন চলছে। সেখানে কেউ কোনও প্রতিবাদ করছে না। এমনকি তাদের জরিমানাও করা হচ্ছে না। কিন্তু কেবল কাপড়ের দোকান খোলা থাকায় জরিমানা করতে আসছে প্রশাসনের লোকজন। করোনার শুরু থেকেই লোকসানের মধ্যে রয়েছে বস্ত্র মালিকরা। আবারো দোকান বন্ধ রাখতে হলে বড় আকারের লোকসানে পড়বেন বলে অভিযোগ করেন তারা। এছাড়া বেকার হয়ে পড়বে শত শত কর্মচারী। তাই তারা বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ করেন।

পঞ্চগড় বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতির শহিদুল ইসলাম খান বলেন, ম্যাজিস্ট্রেটের সাথে আমাদের এক দোকান মালিকের বাগবিতণ্ডা হয়েছে। এ ঘটনায় পরে আমাদের নামে যেন মামলা না হয় আমরা সেই চেষ্টা করছিলাম। সবাই একসাথে সড়কে থাকার কারণে চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বহিরাগত কিছু লোকজন অবরোধ করে। বস্ত্র মালিক ও কর্মচারীরা এর মধ্যে জড়িত ছিল না।

পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ হোসেন বলেন, ব্যবসায়ীদের সাথে একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। পরে তারা দুঃখ প্রকাশ করেছে। তারা দোকান খোলা রাখার দাবি করছিল। এটা কেবিনেটের সিদ্ধান্ত। তাই আমরা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেয়ার ক্ষমতা রাখি না। তারপরও আমরা তাদের দাবি নিয়ে রাস্তায় বিক্ষোভ না করে জেলা প্রশাসকের সাথে কথা বলার জন্য বলেছি। পরে তারা বিক্ষোভ তুলে নিয়েছে।

এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আমিনুল ইসলাম বলেন, আমি দুইজন পুলিশ সদস্যকে নিয়ে বিকেল পৌনে চারটার দিকে পঞ্চগড় বাজার পরিদর্শনে গিয়েছিলাম । এসময় কাপড় দোকানগুলো যেহেতু নিত্যপ্রয়োজনীয় নয় এজন্য তাদেরকে শুধু দোকান বন্ধ রাখার জন্য সতর্কতা দিয়েছি। বেশিরভাগ দোকান আমার পরিদর্শনের সময় বন্ধ করে দিয়েছিল । তবে আলহাজ ক্লথ স্টোরের মালিক আব্দুল হান্নান আলহাজ বিষয়টি নিয়ে হট্টগোল তৈরি করে। আমি মনে করি কাপড় ব্যবসায়ীরা পরিকল্পিতভাবে এমন পরিস্থিতি তৈরি করেছে।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS