Mir cement
logo
  • ঢাকা শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

১৮ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না, পুলিশ ঠিকই খুঁজে বের করলো নারীকে

১৮ বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হলো না, পুলিশ ঠিকই খুঁজে বের করলো নারীকে

দীর্ঘ আঠার বছর পালিয়ে থেকেও শেষ রক্ষা হল না। পুলিশ ঠিকই খুঁজে ঘাতককে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠাল।

রাজবাড়ী সদর থানার এসআই হিরন কুমার বিশ্বাস গতকাল সোমবার রাতে রাজবাড়ী জেলা জজ আদালতের এক হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মমতাজ বেগমকে গ্রেপ্তার করেছে। অবশ্য তার এই বিশেষ অভিযানে রাজবাড়ী থানা পুলিশের এএসআই মো. দেলোয়ার হোসেন এবং মহিলা কং৫৫৪ রোমেনা আক্তার সহযোগিতা করেনে।

পুলিশ কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার মাজদিয়ার এলাকা থেকে আসামি মমতাজ বেগম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে গ্রেপ্তার করে।

সাজাপ্রাপ্ত মমতাজ বেগম রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামনগর গ্রামের মৃত আব্দুল হাকিম আলীর মেয়ে। তবে আদালতে এ রায় ঘোষণাকালে মমতাজ পলাতক ছিল।

রাজবাড়ী থানা সূত্র জানায়, রাজবাড়ীর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. বেলায়েত হোসেন ২০০৮ সালে তারিখে অত্র মামলার রায় ঘোষণা করেন।

উল্লেখ্য, ১৮ বছর আগে চুয়াডাঙ্গা জেলার চুয়াডাঙ্গা থানাধীন বেগমপুর গ্রামের রবিউল মোল্লার ছেলে ভাঙ্গারী ব্যবসায়ী আহম্মদ আলী মোল্লা রাজবাড়ী থানাধীন রামনগর গ্রামস্থ মৃত আ. হাকিমের কন্যা মমতাজ বেগমকে বিবাহ করে শ্বশুর বাড়িতেই স্ত্রীসহ বসবাস করতেন। রামনগর গ্রামের শ্বশুর বাড়িতে অবস্থানকালে ২০০২ সালে আহম্মদ আলীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়। পরে তার ভাই মোহাম্মদ আলী মোল্লা বাদী হয়ে রাজবাড়ীর ১নং আমলী আদালতে মমতাজ বেগমসহ ৬ জনকে এজাহার নামীয় এবং ৩৫/৩৬ জন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করেন। ওই দিনই আদালতের নির্দেশে রাজবাড়ী থানায় উল্লেখিত মামলা রুজু হয়। মামলা রুজুর পর থেকেই উক্ত আসামি গত ১৮ আঠার বছর ধরে পলাতক ছিল।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS