logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ৭ বৈশাখ ১৪২৮

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ২৩ মার্চ ২০২১, ১০:১২
আপডেট : ২৩ মার্চ ২০২১, ১১:০৫

গৃহবধূকে পেটানো সেই চাচা শ্বশুর গ্রেপ্তার 

The uncle who beat the housewife was arrested
গৃহবধূকে পেটানো সেই চাচাশ্বশুর গ্রেপ্তার

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে ধানক্ষেতে ফেলে গৃহবধূকে পেটানোর দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর সেই চাচা শ্বশুর আনোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২২ মার্চ) রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়ন থেকে আনোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করে। এর আগে একই দিন ওই গৃহবধূর ভাই মাহবুব আলম বাদী হয়ে ৬ জনকে আসামি করে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

গ্রেপ্তারকৃত আনোয়ার হোসেন উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের বালিহাটা গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে।

এর আগে গত ১০ মার্চ উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের বালিহাটা গ্রামে ধানক্ষেতে ফেলে গৃহবধূ ইয়াসমিন আক্তারকে লাঠি দিয়ে পেটান আনোয়ার হোসেন, তার স্ত্রী, ছেলেসহ ৬ জন।

সেখান থেকে ভুক্তভোগী গৃহবধূকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন তার ভাই মাহবুব আলম। এর পরে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে গত ১৮ মার্চ গৃহবধূ জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে ময়মনসিংহ অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল আদালতে আবেদন করেন।

রোববার (২১ মার্চ) ভুক্তভোগীর বড় ভাই মাহবুব আলমের ফেসবুক আইডি থেকে ‘হৃদয়ে ঈশ্বরগঞ্জ’ পেজে ওই গৃহবধূকে পেটানোর ১২ সেকেন্ডের একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়। পরে সেই ভিডিও নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয় এলাকায়।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে ফুফা আবুল কালামের ছেলে পাবেল মিয়ার সাথে বিয়ে হয় ভুক্তভোগী ইয়াসমিন আক্তারের। বিয়ের পর থেকে পাবেল যৌতুকের জন্য নির্যাতন করে আসছেন। যৌতুক না দেয়ায় ওই গৃহবধূর দুইবার গর্ভপাত করিয়েছেন স্বামী পাভেল ও তার পরিবারের সদস্যরা। গত বছরের ১ নভেম্বর ১০ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য স্বামী ও তার পরিবার ইয়াসমিনকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।

পরে তিনি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮ দিন চিকিৎসা নেন। তিনি কিছুটা সুস্থ হয়ে গত বছরের ৮ নভেম্বর বাদী হয়ে ময়মনসিংহের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় মো. পাবেল মিয়াকে ১ মার্চ গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠায় থানা পুলিশ।

পাভেল মিয়াকে কারাগারে পাঠানোর পর তার চাচা মামলা তুলে নেয়ার জন্য হুমকি দেন। এরই জের ধরে গত ১০ মার্চ তিনি মাঠে ছাগল আনতে গেলে চাচাশ্বশুর আনোয়ার মামলা তুলে নেয়ার জন্য হুমকি দেন। এসময় তারা বলেন, মামলা তুলে না নিলে তাকে মেরে ফেলা হবে।

এরপরও ভুক্তভোগী ইয়াসমিন মামলা তুলে নেবেন না বলতেই চাচাশ্বশুর আনোয়ার হোসেন, তানবিনা আক্তার, তানভীন আলমসহ অন্যান্যরা তাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে সেখানেই ফেলে রেখে যান। পরে ভুক্তভোগীর ভাই তাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল কাদির মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ওই গৃহবধূর ভাই মাহবুব বাদী হয়ে মামলা দায়ের করার পর রাতেই অভিযান চালিয়ে আনোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জিএম/পি

RTV Drama
RTVPLUS