logo
  • ঢাকা বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮

ঘটনা ঘটে গেলে বিশেষজ্ঞরা বড় বড় পরামর্শ দেন: তাপস

শেখ ফজলে নূর তাপস।

আমি একটি বিষয় সুস্পষ্ট করতে চাই, আমাদের বিশেষজ্ঞরা যারা আছেন, তারা ঘটনা ঘটে গেলে অনেক বড় বড় পরামর্শ দিতে পারেন। আগে আমাদের করণীয় কী সেই বিষয়ে তাদের কাছ থেকে পরামর্শ পাই না। ডেঙ্গুর প্রকোপ যেহেতু ছিল তাই আমাদের বলা হয়েছিল ডিসেম্বর পর্যন্ত কার্যক্রম চালিয়ে নিতে। কিন্তু আসলে সেই কৌশল ভুল ছিল। শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের কে কিউলেক্স মশার বিরুদ্ধে কার্যক্রম নেওয়া উচিত ছিল। বলছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

আজ বুধবার (৩ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর পান্থকুঞ্জ বক্স কালভার্ট পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন এবং পান্থকুঞ্জ এসটিএস উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন তিনি।

ডিএসসিসি মেয়র আরও বলেন, এরই মধ্যে আমরা সমন্বিতভাবে মশক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম শুরু করেছি। এর ফলে সম্পূর্ণরূপে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয়েছি আমরা। আল্লাহর রহমতে গত মৌসুমে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে কারো প্রাণহানি ঘটেনি। আমরা অতীতে লক্ষ্য করেছি ডেঙ্গু মশার প্রভাব সেপ্টেম্বর নাগাদ শেষ হয়ে যেত। তবে এবার সেটা না হয়ে ডিসেম্বর পর্যন্ত ছিল।

শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, বিশেষজ্ঞরা আমাদের কে বলেছিলেন, ডিসেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গুর বিরুদ্ধে আমাদের কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হবে। আমরাও সেটা চালিয়ে গিয়েছি। কিন্তু দেখা গিয়েছে ডিসেম্বর থেকে শীত মৌসুম আসার সঙ্গে সঙ্গেই ডেঙ্গুর প্রকোপ কমে গিয়ে কিউলেক্স মশার প্রকোপ বাড়ে। সুতরাং আমি বলবো এখানে পরামর্শ এবং মতামতের কিছু ঘাটতি ছিল। পুরো ডিসেম্বরজুড়ে ডেঙ্গু মশার বিরুদ্ধে কাজ করায় কিউলেক্স মশার জন্য পরিপূর্ণভাবে কাজ করা যায়নি।

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, আরও দুমাস আগে যদি খালগুলো পেতাম, তাহলে সেখান থেকে বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম শুরু করতে পারতাম। এতে কিউলেক্স মশার প্রভাব আস্তে আস্তে কমে যেত। আমরা কৌশলের পরিবর্তন করেছি, সকালে মশার বিরুদ্ধে আমাদের ৪ ঘণ্টায় কার্যক্রম চলছে, বিকেলের কার্যক্রম বাড়ানো হচ্ছে। আমি আশাবাদী আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে কিউলেক্স মশার নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। তবে ডেঙ্গু মশার জন্য আমাদের কৌশলের পরিবর্তন করে এপ্রিল থেকেই কার্যক্রম শুরু করবো। এর আগে মেয়র জিরানি খালের নন্দীপাড়া ব্রিজ পরিদর্শন করেন।

এম

RTV Drama
RTVPLUS