Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮

মেসে খেতে এসে কিশোরী ধর্ষণ

মেসে খেতে এসে কিশোরী ধর্ষণ
ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার লামাপাড়ায় এক কিশোরী (১৫) কে ধর্ষণ করেছে সামিউল ইসলাম (২২) এক যুবক।

সোমবার (১ মার্চ) নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নুরুন্নাহার ইয়াসমিনের আদালতে ভুক্তভোগী কিশোরী জবানবন্দিতে জানান, মেসে খেতে এসে অন্য একজনের সহযোগিতায় তাকে ধর্ষণ করেছে অভিযুক্ত।

অভিযুক্ত মো. সামিউল ইসলাম ময়মনসিংহ জেলার সদর থানার কুষ্টিয়া এলাকার আল আমিনের ছেলে এবং তার সহযোগী ওসমান গনি (৪০) জামালপুর জেলার সদর থানার গোড়াকান্দা এলাকার সুরুজ জামানের ছেলে।

সত্যতা নিশ্চিত করে কোর্ট পুলিশের এএসআই শাহীন বলেন, এই ধর্ষণ মামলায় ভিকটিম আদালতে ২২ ধারা জবানবন্দি দিয়েছেন। কিন্তু এ ঘটনায় এখনো আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়নি।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, কিশোরী পরিবার তাদের বাড়িতে কয়েকজন মানুষকে অর্থের বিনিময়ে ক্যাটারিং সিস্টেমে তিন বেলা খাবার খাওয়ায়। গত ৪ ফেব্রুয়ারি এ মামলার ২নং আসামি ওসমান গনি কিশোরীর বাসায় সামিউল ইসলামকে নিয়ে গিয়ে ভাগ্নে বলে পরিচয় দেন। ৭ ফেব্রুয়ারি খাবার খাওয়ার জন্য সামিউল ইসলাম কিশোরীর বাসায় যায়। তখন কিশোরী মা কিশোরীকে রেখে সবজি কিনতে বাজারে যায়। কিশোরীকে একা পেয়ে সামিউল দরজা বন্ধ করে ধর্ষণ করে। বিষয়টি কিশোরী সামিউল এর মামা ওসমান গনি জানায়। ওসমান গনি ধর্ষণের কথা শুনে উল্টো কিশোরীকে হুমকি প্রদান করেন। পরে কিশোরী তার মাকে জানায়। কিশোরীর মা সব শুনে ফতুল্লা থানায় গিয়ে মামলা দায়ের করেন।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS