Mir cement
logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

টাঙ্গাইল (উত্তর) প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

  ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:০৮
আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:১৭

‘আস্ত যমুনা গিলে খেলেও প্রতিবাদ করার সাহস নেই’

যমুনা×নদী×টাঙ্গাইল×জগতপুরা×এলাকা×প্রশাসন×বালু×মহোৎসব×
ছবি আরটিভি নিউজ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে যমুনা নদীর পূর্ব পাশে জেগে ওঠা চরে গড়ে উঠছে অর্থনৈতিক অঞ্চল। এতে করে শুধু টাঙ্গাইল নয়, সিরাজগঞ্জসহ আশপাশের এলাকায় শিল্প-বাণিজ্যের ব্যাপক সম্ভাবনা দেখা দিবে। এ অর্থনৈতিক অঞ্চলকে বর্তমান সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে দেখছে টাঙ্গাইলবাসী। বিশেষ করে টাঙ্গাইল-২ (গোপালপুর-ভূঞাপুর) আসনের সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোট মনিরের ভূমিকা রয়েছে প্রশংসনীয়। অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তিনি।

ভূঞাপুর উপজেলার পলশিয়া, দোভায়া, কোনাবাড়ী, পাটিতাপাড়া, নাগরগাতী, ভালকুটিয়া, কষ্টাপাড়া এবং খানুরবাড়ী এলাকা নিয়ে ১ হাজার ৭৫৯.৮২ একর জমিতে গড়ে উঠবে এ অর্থনৈতিক অঞ্চল। কর্মসংস্থান হবে হাজার হাজার মানুষের। বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব রেলস্টেশন ও বঙ্গবন্ধু সেতুর নিকটবর্তী হওয়ায় টাঙ্গাইলসহ পার্শ্ববর্তী জেলাসমূহের ব্যাপক উন্নতি সাধিত হবে। ফলে যমুনার ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা পাবে সেতু পূর্বপাড়ের প্রায় ১৫ কিলোমিটার এলাকার ফসলি জমি ও বসতভিটা। সুযোগ সৃষ্টি হবে পর্যটন শিল্পেরও।

আরও পড়ুন : নার্সিং কলেজ হোস্টেলে ভূত আতঙ্কে ৪ ছাত্রী হাসপাতালে!

কিন্তু এক শ্রেণির অসাধু ব্যক্তি অর্থনৈতিক জোনের নির্ধারিত স্থান থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে দেদারছে। নদী থেকে উত্তোলন করা এসব বালু ভিটি বালু হিসেবে পরিচিত। এতে করে খালি হয়ে যাচ্ছে নদীর তলদেশ। অর্থনৈতিক জোনের কাজ শুরু হলে পুনরায় ভরাট করতে হবে ঐসব এলাকা। যাতে করে খরচ বেড়ে যাবে কয়েকগুণ। সরকারের ক্ষতি হবে মোটা অংকের টাকা।

শুধু অর্থনৈতিক জোনের এলাকা নয়, উপজেলার জিগাতলা ও জগতপুরা এলাকায় নদী কেটে ভিটি বালু উত্তোলনের মহোৎসব চলছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাঝে মধ্যে অভিযান পরিচালনা করা হলেও একদিন পরেই আবার একইভাবে বালু উত্তোলন হচ্ছে। অভিযানে যাদের আটক বা জেল জরিমানা করা হয় তারা সবাই শ্রমিক শ্রেণির। মূলহোতারা থেকে যাচ্ছে ধরাছোঁয়ার বাইরে।

আরও পড়ুন : ধর্ষণ চেষ্টার পর মেয়েটিকে ধৌত করে ঘরে পাঠায় শাহীন

এলাকাবাসী জানান, নদী কেটে যারা বালু উত্তোলন করছে তারা সবাই প্রভাবশালী। তাদের সামনে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায় না। পুরো নদী নিয়ে গেলেও কেউ কিছু বলতে পারবে না। মাননীয় এমপি ছোট মনিরের কাছে আবেদন তিনি যেন বিষয়টি একটু দেখেন।

বালু উত্তোলনের বিষয়ে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি বলেন, অর্থনৈতিক জোনের এলাকা থেকে যারাই বালু উত্তোলন করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, শুধু অর্থনৈতিক জোনের এলাকা থেকে নয়, যমুনা নদীর যেকোনো জায়গা থেকে যে ব্যক্তিই বালু উত্তোলন করবে তা কঠোরভাবে দমন করা হবে।

আরও পড়ুন : রিসোর্টে টিস্যু বক্সে ক্যামেরা লাগিয়ে দম্পতির শারীরিক সম্পর্কের ভিডিও ধারণ

জেবি

RTV Drama
RTVPLUS