logo
  • ঢাকা সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭

ভবিষ্যতে ভাসানচরে রোহিঙ্গারা দলে দলে আসবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী 

ভাসানচরের সুযোগ-সুবিধা ও নিরাপত্তা দেখে ভবিষ্যতে রোহিঙ্গারা এখানে দলে দলে আসবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা এতদিন ভুল বুঝেছিল যে, এখানে তাদের নানা ধরনের অসুবিধা হবে।

আজ মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) দুপুরে ভাসানচর থানা উদ্বোধনের পর এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, রোহিঙ্গারা তাদের দেশে ফেরত যাবে। ভাসানচর ও আশপাশ এলাকার শান্তি শৃঙ্খলার জন্য এ থানা উদ্বোধন করা হয়েছে। ভাসানচরের সুযোগ সুবিধা ও নিরাপত্তা দেখে ভবিষ্যতে রোহিঙ্গারা দলে দলে এখানে আসবে।

উদ্বোধনের মাধ্যমে নোয়াখালী জেলায় দশম থানা ও হাতিয়া উপজেলায় দ্বিতীয় থানা আনুষ্ঠানিক ভাবে কার্যক্রম শুরু হলো। মূলত ভাসানচরটি নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার অধীনে। এটি একটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ হওয়ায় হাতিয়ার মূল ভূখন্ড থেকে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করা অনেকটা কঠিন হবে। তাই সরকার শুধু ভাসানচরের জন্য পুর্ণাঙ্গ এই থানাটি ঘোষণা করে। আজ আনুষ্ঠানিক ভাবে এর উদ্বোধন হলো। এই থানাটি মূলত রোহিঙ্গাদের অস্থায়ী আবাসস্থল ভাসানচর ও এর আশপাশে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে কাজ করবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী-৬ হাতিয়ার সংসদ সদস্য আয়েশা ফেরদৌস, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. মোস্তফা কামালউদ্দিন, বাংলাদেশ পুলিশ ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. বেনজীর আহমেদ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মো. শহিদুজ্জামান, সাবেক এমপি মোহাম্মদ আলী, নোয়াখালী জেলা প্রশাসক খোরশেদ আলম খান, নোয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন, ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্প- ৩ এর প্রকল্প পরিচালক কমোডর আবদুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী ও হাতিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মাহবুবব মোর্শেদ লিটন।

অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার নোয়াখালী আলমগীর হোসেন ভাসানচরে বসবাসরত রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা ও আইনশৃঙ্খলাসহ সামগ্রিক বিষয় সংক্ষেপ এর প্রধান অতিথিসহ সকলকে অবহিত করেন।

ভাসানচরে এক লাখ রোহিঙ্গা স্থানান্তরের পরিকল্পনায় তাদের নিরাপত্তা বিধানে লক্ষ্যে ২০১৭ সালে এখানে একটি পুর্নাঙ্গ থানা অনুমোদন জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রস্তাব পাঠানো হয়। পরে ২০১৯ সালে ডিসেম্বরে ২৪টি পদ অনুমোদন দেয়।

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS