logo
  • ঢাকা বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১১ ফাল্গুন ১৪২৭

ধনবাড়ী পৌর নির্বাচনে ফিঙ্গার রেখে ভোটারদের বের করে দেয়ার অভিযোগ

ধনবাড়ী পৌর নির্বাচনে ফিঙ্গার রেখে ভোটারদের বের করে দেয়ার অভিযোগ

টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী পৌরসভা নির্বাচনে ভোটারদের ফিঙ্গার রেখে বের করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে নৌকা সমর্থিত প্রার্থীর লোকজনের বিরুদ্ধে। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী মনিরুজ্জামান বকল (নারিকেল গাছ) ও বিএনপি প্রার্থী এসএমএ ছোবহান (ধানের শীষ) এ অভিযোগ তুলেন।

আজ শনিবার (১৬ জানুয়ারি) বেলা ১২টার দিকে ধনবাড়ী সরকারি ডিগ্রী কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে শনিবার সকাল ৮টা এ পৌরসভার ১৫টি কেন্দ্রে ইভিএম-এ ভোটগ্রহণ শুরু হয়। তবে ধনবাড়ী সরকারি ডিগ্রী কলেজ কেন্দ্র শুরু থেকেই থমথমে অবস্থা বিরাজ করে। এ কেন্দ্রে বেশ কিছু ভোটারদের ফিঙ্গার রেখে বের করে দেয়ার অভিযোগ উঠে। দফায় দফায় এ কেন্দ্রে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মনিরুজ্জামান বকল বলেন, “আওয়ামী লীগের প্রার্থী খন্দকার মঞ্জুরুল ইসলাম তপনের লোকজন আমার এজেন্টদের বের করে দিয়েছে। আর ভোটারদের ফিঙ্গার রেখে তাদের বের করে দিয়ে নৌকা মার্কায় ভোট দিচ্ছে। শুধু এ কেন্দ্রেই না, সব কেন্দ্রের এমন ঘটনা ঘটছে। এ বিষয়ে প্রিজাইডিং অফিসারের কাছে অভিযোগ দেয়া হয়েছে। তবে তেমন কোনও ব্যবস্থা নেননি তিনি।

বিএনপি প্রার্থী এসএমএ ছোবহান বলেন, “ধনবাড়ী সরকারি ডিগ্রী কলেজে ৮ নম্বর কেন্দ্রসহ কয়েকটি কেন্দ্রে ভোটারদের ফিঙ্গার রেখে বের করে দিয়ে নৌকা প্রার্থীর সমর্থিতরা নৌকায় ভোট দিচ্ছে। এখানে সুষ্ঠুভাবে ভোট হচ্ছে না। বেশিরভাগ কেন্দ্রে একই সমস্যা।”

ওই কেন্দ্রের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর এজেন্ট রাশেদুজ্জামান লিটন বলেন, “আমার সামনেই আওয়ামী লীগের লোকজন নৌকা মার্কায় ভোট দিচ্ছে। বাঁধা দিলে আমাকে তারা বের করে দেয়।”

এ বিষয়ে জানতে ওই কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্বে থাকা সুজন নাথের অফিসে গেলে তার কক্ষটি তালাবন্ধ পাওয়া যায়। কক্ষের সামনে পাহারায় থাকা আনসার সদস্য বলেন, স্যার বাইরে তালা দিয়ে ভেতরে বসে আছেন। পরে তিনি তালা খুলে দেন। তখন প্রিজাইডিং অফিসার বলেন, এখনও কেউ আমার কাছে অভিযোগ দেয়নি।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা করুণা সিন্ধু চাকলাদার বলেন, “ভোট সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে। আমার কাছে কেউ কোন অভিযোগ করেনি।”

এসএস

RTV Drama
RTVPLUS