logo
  • ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ২ মাঘ ১৪২৭

ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে নিয়মিত জুয়ার বসাতেন মেম্বার হামিদ

মেম্বার×জুয়া×পুলিশ×কক্ষ×বাংলাদেশ×
আরটিভি নিউজ
ইউনিয়ন পরিষদের কক্ষে জুয়া খেলার অপরাধে ইউপি সদস্যসহ চার জুয়ারিকে আটক করেছে পঞ্চগড় সদর থানা  পুলিশ।

গতকাল বুধবার দিনগত গভীর রাতে পঞ্চগড় সদর উপজেলার সদর ইউনিয়ন পরিষদের দ্বিতীয়তলার একটি কক্ষ থেকে ওই জুয়ারিদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন ওই ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদ (৫১), ঝাকুয়াকালি গ্রামের বাচ্চু মিঞার ছেলে আব্দুর রশিদ (৪০), সিতাগ্রাম এলাকার শফিকুল ইসলামের ছেলে আবু হোসেন (৪৫) ও তফিজুল ইসলামের ছেলে  জাহেদুল হক (৩৫)। একইসঙ্গে ঘটনাস্থল থেকে জুয়ারিদের তাস, ১৩ হাজার ৪৮০ টাকা, বিস্কুট, ও মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গতকাল বুধবার সন্ধ্যা হতে ইউপি কার্যালয়ে একটি শালিশ চলছিল। ইউনিয়ন পরিষদের  নৈশ্য প্রহরীর কজে নিয়োজিত চৌকিদারের ছেলে শাহজাহানের দায়িত্বে ছিল দ্বিতীয়তলার একটি কক্ষ। সেই কক্ষ থেকে চেয়ারম্যান  শালিশের লোকদের বসার  জন্য চেয়ার নিয়ে আসার নির্দেশ দেয় । এসময় ওই কক্ষের তালা খুলে চেয়ার নিয়ে আসে শাহজাহান।

শাহজাহান ও অন্যান্য ইউপি সদস্যরা শালিশে ব্যাস্ত থাকার সূযোগে ইউপি সদস্য হামিদ নৈশ্যপ্রহরীর কক্ষে জুয়ারিদের নিয়ে প্রবেশ করে। সেখানেই জুয়া খেলা শুরু করে। শালিশের সময় গোপনে চেয়ারম্যানের কাছে খবর আসে দ্বিতীয় তলার ওই কক্ষে জুয়া খেলা চলছে। এই খবরে ওই কক্ষে  তালা লাগানোর নির্দেশ দেয় চৌকিদার রুস্তম আলীকে। চৌকিদার সেই কক্ষে তালা লাগিয়ে দেয়। কয়েক ঘণ্টা পর ইউপি সদস্য হামিদ  ও জুয়ারিরা বুঝতে পারে তাদেরকে ভেতরে রেখে বাইরে তালা দেওয়া  হয়েছে।  এ সময় তাদের  হাতে থাকা তাসগুলো জানালা দিয়ে  বাইরে ফেলে দেয় । 

ইউপি সদস্যের ইউনিয়ন পরিষদের কক্ষে জুয়া খেলার খবর পেয়ে গভীর রাতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক আল ইমরানসহ আশপাশের কয়েক শতাধিক লোকজন ছুটে আসে ইউপি চত্বরে। একপর্যায়ে ইউপি কার্যালয়ে হট্টগোল তৈরি হয়। স্থানীয়রা জানায় ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদের নেতৃত্বে এখানে  ইউপি চোকিদার  রুস্তম আলীর  ছেলে শাহজাহানের সহযোগিতায় প্রায়ই জুয়া খেলার আসর বসছিল।

পরে রাত একটার দিকে ওই কক্ষ থেকে ইউপি সদস্য আব্দুল হামিদসহ চার জুয়ারিকে আটক করে পঞ্চগড় সদর থানা হাজতে দিয়েছে। পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক শামীম মণ্ডল জানান, ইউপি চেয়ারম্যানের সংবাদের ভিত্তিতে আমরা ইউপি কার্যালয়ে এসে চার জুয়ারিকে আটক করেছি। তাদের বিরুদ্ধে জুয়া আইনে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুল হক বলেন, আমি ইউপি কার্যালয়ে একটি শালিশের কাজে ব্যাস্ত ছিলাম। এ সময় এক ব্যক্তি আমাকে খবর দেয় দ্বিতীয়তলায় জুয়া খেলা চলছে। আমি সে সময় চৌকিদারকে নির্দেশ দেই তালা লাগানোর জন্য। আমার পরিষদের সদস্য হলেও আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে আমি পুলিশে খবর দিয়েছি।  পুলিশ এসে তাদেরকে আটক করে। এই ঘটনায় চৌকিদারের ছেলে শাহজাহানের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

জেবি

RTV Drama
RTVPLUS