logo
  • ঢাকা শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ৯ মাঘ ১৪২৭

ভূরুঙ্গামারীতে ঘুষ নেয়া সেই ভূমি কর্মকর্তা বরখাস্ত

The land officer, who took bribe, in Bhurungamari, rtv news
ভূমি কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম
জমির নামজারি এবং নামখারিজের বিপরীতে ঘুষ নেয়া কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার আন্ধারীঝাড় ইউনিয়ন ভূমি অফিসের সেই উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা নজরুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এছাড়া গতকাল বুধবার ঘটনাস্থলে গিয়ে তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের তদন্ত করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোছা. জিলুফা সুলতানা।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম জমির মালিকানা নির্ধারণে নামজারি ও খারিজ করতে পাঁচ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করতেন। জমির পরিমাণ কিংবা ব্যক্তির অবস্থা দেখে ঘুষের টাকার পরিমাণ কমবেশি করতেন তিনি। শুধু তাই নয় জমি-জমা সংক্রান্ত যেকোনো সাধারণ কাজ করতেও তার অফিসে ঘুষ দেয়া নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছিল। চাহিদামতো ঘুষ দিতে না পারলে মাসের পর মাস ঘুরেও জমি সংক্রান্ত কোনও কাজের সুরাহা পাওয়া যেত না। ফলে ওই উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তার এমন কর্মকাণ্ডে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন ইউনিয়নবাসী।

ভুক্তভোগী আশিকুর রহমান জানান, চার মাস আগে ১৯ শতক জমির খারিজের জন্য সরকারি ফি বাদে অতিরিক্ত আট হাজার টাকা দাবি করেন ওই ভূমি কর্মকর্তা। সে অনুযায়ী দুই দফায় তাকে ৮ হাজার টাকা দেয়া হয়। এ অবস্থায় তিন মাস পার হলেও তিনি খারিজ না করে আরও বিশ হাজার টাকা দাবি করেন। পরে বিষয়টি নিয়ে ঝগড়াবিবাদ বাঁধলে এক মাস আগে সবার সামনে পাঁচ হাজার টাকা ফেরত দেন তিনি। আশিকুর আরও জনান, তদন্তে তার সাক্ষ্য নেয়া হয় এবং একটি লিখিত অভিযোগও নেন তদন্ত সংশ্লিষ্ঠ কর্মকর্তা।

বরখাস্থ হওয়া উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তার ঘুষ বাণিজ্য এবং দুর্নীতির দাপটে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলো ইউনিয়নটির সাধারণ বাসিন্দারা। এ বিষয়ে আরটিভি অনলাইনে গেলো ১ নভেম্বর একটি অনুসন্ধানি প্রতিবেদন প্রচার করে।

এর আগে উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম তার ওপরে বিগ বসদের ছায়া আছে বললেও এখন সুর পাল্টিয়েছেন তিনি। তার সঙ্গে আজ বৃহস্পতিবার মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি দাবি করেছেন, তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগগুলো মিথ্যা, বানোয়াট এবং ভিত্তিহীন। এর বেশি কিছু তিনি বলতে রাজি হননি।

এ প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম আরটিভি নিউজকে জানান, উপ-সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলামকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। এছাড়া অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ তদন্ত করছেন।

জেবি

RTV Drama
RTVPLUS