বেনাপোলে রাজস্ব ফাঁকি, ৫ কোটি টাকার পণ্য আটক 

প্রকাশ | ২৪ নভেম্বর ২০২০, ২০:২৭

বেনাপোল প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ
বেনাপোল স্থলবন্দর

দেশের সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর বেনাপোলে এখন চলছে রাজস্ব ফাঁকির মহোৎসব। গত ১৫ দিনে রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগে ৫ কোটি টাকার পণ্য চালান আটক করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। তবুও থামানো যাচ্ছে না রাজস্ব ফাঁকির প্রবণতা। 

বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের সাথে বছরে ৩৫ হাজার কোটি টাকার বাণিজ্য সম্পন্ন হয়ে থাকে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড বেনাপোল কাস্টমস হাউসের জন্য চলতি অর্থবছরে ৬ হাজার ৫০০ কোটি টাকার রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। একটি অসাধুচক্র রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণে অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছে। রাজস্ব ফাঁকির অভিযোগে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে ৮টি সিএন্ডএফ এজেন্টের লাইসেন্স বাতিল করেছে।  

চকলেটের চালানে উন্নতমানের শাড়ি, ব্লিচিং পাউডারের চালানে কফি ও ওষুধ মেশিনারি পার্টস এর ভেতরে প্যাডলক ও রেক্সিন, আমদানিকৃত ঘোষণাতিরিক্ত ১৯ টন মাছ আটক করা হয়। জরিমানা বাবদ এসব চালান থেকে ২ কোটি ২০ লাখ টাকার জরিমানা আদায় করেছে। জব্দকৃত পণ্যগুলো বাজেয়াপ্ত করে নিলাম করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। রাজস্ব ফাঁকি রোধে ঝটিকা অভিযান শুরু করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। 

অপরদিকে বন্দর ব্যবহারকারী পরিচ্ছন্ন ব্যবসায়ীরা চাইছেন, এসব রাজস্ব ফাঁকিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের।

বেনাপোল কাস্টমস হাউসের উপ-কমিশনার এসএম শামীমুর রহমান আরটিভি নিউজকে বলেন, রাজস্ব ফাঁকি রোধে বেনাপোল কাস্টমস হাউস জিরো টলারেন্স ভূমিকা গ্রহণ করেছে। বন্দরে রাতে কাস্টমসের একাধিক মোবাইল টিম কাজ করছে। অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণে আমরা তৎপর রয়েছি। 
পি