logo
  • ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

নদী ভাঙনে হুমকির মুখে আছে আরও দুইশ স্থাপনা (ভিডিও)

ছবি আরটিভি নিউজ।
ভোলা সদরে পাঙ্গাশিয়া নদীর ভাঙন চলছে। এরই মধ্যে ভাঙনে নদী গর্ভে চলে গেছে অর্ধশতাধিক স্থাপনা। হুমকির মুখে আছে আরও দুইশ স্থাপনা। এরই মধ্যে রয়েছে স্কুল, মাদরাসা, মসজিদসহ বসতভিটা। এতে আতঙ্কে দিন কাটছে স্থানীয় কয়েক হাজার মানুষের। তবে ভাঙন রোধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার।

ভাঙন থেকে রক্ষা পাচ্ছে না স্কুল, মাদরাসা, মসজিদ, বাজার, এমনকি বসতভিটাও। এই চিত্র ভোলার সদরের পশ্চিম ইলিশার পাঙ্গাশিয়া নদী তীরের বাঘারহাট এলাকার। নদীতে চলে গেছে ৫০টির বেশি ঘরবাড়ি। হুমকিতে আছে আরও দুই শতাধিক স্থাপনা। এতে ভাঙনের আতঙ্কে দিন কাটছে স্থানীয় কয়েক হাজার মানুষের।

তাদের অভিযোগ তেঁতুলিয়া নদীর শাখা চ্যানেলের দুটি মোড়ে ডুবচর সৃষ্টি হওয়ায় ভোলা থেকে ঢাকাগামী লঞ্চগুলো বিকল্প পথ বাঘারহাট দিয়ে যাতায়াত করছে। এতে তীব্র ভাঙন শুরু হয়েছে।

 স্থানীয়ারা বলেন, যেখানেই থাকি নদী ভেঙে আসছে। আমরা সন্তান নিয়ে নদীর পাড়ে কোনও রকমভাবে থাকি।  এছাড়া এই নদীর পাড়ও ভেঙ্গে যাচ্ছে।

 ডুবোচরে ড্রেজিং অথবা ভাঙন রোধে সিসি ব্লক দেয়া হলে তীব্রতা কমবে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। ভাঙন রোধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান ভোলার পানি উন্নয়ন বোর্ড এর নির্বাহী প্রকৌশলী মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান।

তিনি বলেন, ভাঙ্গন প্রতিরোধে স্থায়ী সমাধানের জন্য আমরা একটি ডিপিপি প্রণয়ন করছি। আশা করি ডিপিপির অনুমতির পর স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করলে নদী ভাঙন বন্ধ করা সম্ভব হবে।

ঐতিহ্যবাহী বাজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ ভিটেমাটি রক্ষায় ড্রেজিং অথবা সিসি ব্লক স্থাপনের দাবিতে আতঙ্কে দিন কাটানো হাজারো মানুষের।

জিএম/এম

RTVPLUS