logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

বরিশালে সংঘর্ষের ৬ দিন পর মামলা

The case came, 7 days after the clashes, rtv news
বরিশাল

বরিশালে সিনিয়র-জুনিয়র ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সরকারি বরিশাল কলেজ ছাত্রদলের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম টিপুর সঙ্গে একই এলাকার তানজিম রাব্বীর দ্বন্দ্ব হয়। এরই সূত্র ধরে সাত দিন আগে রাত সাড়ে আটটার দিকে নগরীর কালীবাড়ী রোডের বরিশাল কলেজ মোড়ে দুই দলের মধ্যে মারামারি হয়। এতে তানজিম হাতে থাকা লোহার পাত দিয়ে টিপুর মাথায় বেশ কয়টি আঘাত করে।

এ সময় টিপু গ্রুপের দায়ের কোপে তানজিমের পায়ে জখম হয়। স্থানীয়রা টিপুকে উদ্ধার করে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে এবং তানজিমকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই রাতেই উন্নত চিকিৎসার জন্য  টিপুর স্বজনরা তাকে ঢাকায় নিয়ে যায়। এ ঘটনার ছয় দিন পরে গতকাল তানজিমের বাবা কালীবাড়ী এলাকার বাসিন্দা জামাল উদ্দিন বরিশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আনিছুর রহমানের আদালতে টিপুসহ ১১ জনকে আসামি করে একটি মামলা করে। 

মামলার অন্য আসামি করা হয়েছে কাউনিয়া এলাকার সুলতান শাহজাদার দুই ছেলে অনিক রেজা আকাশ ( ২৬) ও আশিককে (২৮)। মনসাবাড়ি গলির কালু হাওলাদারের ছেলে দোলন হাওলাদার (২৫) ও শীতলা খোলা এলাকার মোল্লা শাখাওয়াত হোসেনের ছেলে সাজ্জাত বিন শাখাওয়াত (৩০) এবং অজ্ঞাতনামা আরও ৫-জনকে অভিযুক্ত করা হয়।

বাদী জালাল মামলায় উল্লেখ করেন, অভিযুক্তরা সকলে সন্ত্রাসী। তার ছেলে ফজলে রাব্বী তানজিম গেলো সাত নভেম্বর বরিশাল কলেজের সামনে বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরতে গেলে টিপুর সঙ্গে তার কথা কাটাকাটি হয়। রাত পৌনে ৯ টার দিকে তার বড় ছেলে জাহিদ হাসান রাজিন শ্রীনাথ চ্যাটার্জি লেনের ফাহিম খাবার হোটেলের সামনে গেলে অভিযুক্তদের সঙ্গে রাজিনেরও কথা কাটাকাটি হয়।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে টিপু ফাহিম হোটেলের ভেতর থেকে দেশীয় অস্ত্র এনে হত্যার উদ্দেশে মাথার ওপর কোপ দেয়। রাজিন সরে গেলে কোপ লেগে তার ডান পায়ের হাঁটুর নিচে হাড় কেটে জখম হয়। অন্যান্য অভিযুক্তরা এসে কোপানো শুরু করলে রাজিনের বাম হাতের তিনটি আঙ্গুল কেটে এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম হয়। রাজিনের চিৎকারে লোকজন ছুটে আসলে তার পকেটে থাকা পাঁচ হাজার টাকা নিয়ে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতের বেঞ্চ সহকারী মো. সেলিম।

অপরদিকে কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল ইসলাম আরটিভি নিউজকে জানান, বর্তমানে টিপু ঢাকায় চিকিৎসাধীন থাকায় তার পক্ষে থেকে কোনও মামলা দায়ের করা হয়নি। প্রসঙ্গত, ২০১২ সালে একই স্থানে রফিকুল ইসলাম টিপুর মেজ ভাই সরকারি বরিশাল কলেজ ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক রাফসান আহম্মেদ জিতুর প্রতিপক্ষ তাকে কুপিয়ে হত্যা করে।

জেবি

RTVPLUS