আওয়ামী যুবলীগ নেতার গুদামে ৪৯৭ বস্তা সরকারি চাল

প্রকাশ | ০৯ নভেম্বর ২০২০, ০৯:০৫ | আপডেট: ০৯ নভেম্বর ২০২০, ০৯:৩০

পাবনা প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ
যুবলীগ নেতার গুদামে সরকারি চাল

পাবনার বেড়া উপজেলার চাকলা ইউনিয়নে যুবলীগ নেতা সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার মাসুদ রানার গুদামে ৪৯৭ বস্তা চাল মজুদ রাখার অভিযোগ অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল রোববার এমন অভিযোগে উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহবুব হাসান ও উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা শিরিন আক্তার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সংশ্লিষ্ঠ প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চাকলা ইউনিয়নের বাগজান গ্রামের সাবেক কাদের মেম্বারের ছেলে আওয়ামী যুবলীগ নেতা মাসুদ রানা সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির একজন ডিলার। উপজেলা কর্তৃক নির্ধারিত স্থান হিসেবে সরকারি চাল রাখার কথা চাকলা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কুশিয়ারা বাজারের ছোলাইমানের ঘরে। কিন্তু নির্ধারিত স্থান পরিবর্তন করে অসৎ উদ্দেশে বাগজান  আট নম্বর ওয়ার্ডের মোতালেব চৌকিদারের বাড়িসংলগ্ন তার ব্যক্তিগত গুদামে ৪৯৭ বস্তা চাউল মুজুদ করেন। এ বিষয়ে লিখিত কোনও আবেদন না করেই নিজের ইচ্ছেমতো অন্য স্থানে চাল মুজুদ করেন মাসুদ রানা।  এমন গোপন সংবাদে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহবুব হাসান, খাদ্য কর্মকর্তা শিরীন আক্তার সরেজমিনে গিয়ে তার সত্যতা পান। এই চাল দরিদ্র মানুষের মধ্যে ১০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করার কথা ছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন এলাকাবাসী জানান, মাসুদ এলাকায় প্রভাব খাটিয়ে সুদের রমরমা ব্যবসা করছে দীর্ঘদিন। তার সুদের টাকা না দিতে পেরে এলাকা ছেড়েছেন অনেকেই। এমনকি যে ঘরে সরকারি চাউল মুজুদ করেছিল সেই ঘর পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখল করে ব্যক্তিগত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করছেন। এমন কি নিজেকে অনেক বড় সাংবাদিক দাবি করে বিভিন্ন অপকর্ম করে বেড়ায় সে। অবৈধভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জায়গা দখলের প্রেক্ষিতে এলাকাবাসী তার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য উপজেলা প্রশাসন ও পানি উন্নয়ন বোর্ডে বরাবর লিখিত অভিযোগও দিয়েছেন বলে জানান এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি ডিলার মাসুদ রানা আরটিভি নিউজকে জানান, খাদ্য অধিদপ্তর বরাবর বরখাস্ত করেছি।  বিষয়টি অফিসের অবহেলায় এখনও অনুমোদন পাইনি।

ইউএনও আসিফ আনাম সিদ্দিকী আরটিভি অনলাইনকে বলেন, ডিলার মাসুদের ব্যাপারে অভিযোগ পাওয়ার পরেই অ্যাসিল্যান্ড সেখানে পরিদর্শন করেছেন এবং এ অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়া গেছে। যেখানে তার অনুমোদিত সরকারি চাল রাখার সর্ত ভঙ্গ করে অন্য যায়গায় চাল রাখার দায়ে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির নিতিমালা অনুযায়ী সে যদি সর্ত ভঙ্গ করে সে বিষয়ে আমরা প্রশাসনিক পদক্ষেপ গ্রহণ করব। স্থান পরিবর্তনের জন্য তিনি কোনও লিখিত আবেদন করেননি বলেও তিনি জানান।

জেবি