logo
  • ঢাকা রোববার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

রাবির সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজুর হত্যা, দুই আসামি গ্রেপ্তার (ভিডিও)

সাভারে দুর্বৃওদের হাতে নির্মমভাবে ছুরিকাঘাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজুর রহমান (৩২) হত্যাকান্ডের ঘটনার হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৪।

সোমবার গভীররাতে সাভারের রাজাশন এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করে র‌্যাব-৪। 

আটককৃত দুই হত্যাকারী হলেন- বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ থানার নিজাম শরীফের ছেলে আজাদ শরীফ (২৯) ও সাভারের ডগরমোড়া এলাকার আব্দুল গণির ছেলে রনি ওরফে ডগি রনি (৩০)। 

হত্যাকারী দু’জনেই সাভার, আশুলিয়াসহ বিভিন্ন এলাকার পেশাদার ছিনতাইকারী। তাদের নির্যাতনে অনেক মানুষের জীবন চলে গেছে বলে ধারণা করছেন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

র‌্যাব- ৪ জানায়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের ২০১৯ সালের  স্নাতকোত্তর ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী রাজশাহী জেলার দূর্গাপুর থানার নওয়াপাড়া গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান একটি দুর পাল্লার বাসে করে ২৪ অক্টোবর শনিবার  ভোরে সাভারের শিমুলতলা এলাকায় নামেন। বাস থেকে নামার পরে তিনি ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন। ছিনতাইকারীরা এসময় তার কাছে থাকা টাকা পয়সাসহ মুল্যবান মালামাল লুটপাট করে এলোপাথারীভাবে ছুরিকাঘাত করে সড়কে ফেলে রেখে পালিয়ে গেলে সেখানেই মৃত্যু হয় তার।

এ ঘটনায় সাভার মডেল থানা ও পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন এর পাশাপাশি হত্যাকারীদের ধরতে মাঠে নামে র‌্যাব-৪। পরে গভীররাতে উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে সাভার পৌর এলাকার রাজাশন মহল্লায় অভিযান চালিয়ে দুই হত্যাকারীকে আটক করে র‌্যাব-৪। 

র‌্যাব আরও বলছে, আটক দুই হত্যাকারী মোস্তাফিজুর রহমানকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন।

এ বিষয়ে র‌্যাব-৪ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার উনু মং বলেন, আটক দুই হত্যাকারীকে সকালে সাভার মডেল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এছাড়া এ হত্যাকান্ডে আরও একজন জড়িতকে আটকের প্রক্রিয়া চলছে। তিনি আরও বলেন হত্যাকারীরা দেশের বাহিরে পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

এ দিকে হত্যাকান্ডের ঘটনায় সোমবার গভীররাতে সাভার মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের বাবা মজিবুর রহমান।

উল্লেখ্য, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজুর রহমান (৩২) ঘটনাস্থলের অদূরে ডগররমাড়া এলাকায় থাকতেন। তিনি সাভারের গ্লোরিয়াস ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ছিলেন। স্ত্রী  খাদিজা ও এক বছরের সন্তান মুসাকে সাভারের আনবার জন্য বাসা ভাড়া করে রাজশাহী গিয়েছিলেন কিন্তু সন্তানের জ্বর থাকায় তারা আসতে না পারায় তিনি একাই চলে আসেন। সেদিন ভোরে বাস থেকে নেমেই ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন। ছিনতাইকারীরা তার সব কিছু নিয়ে তাকে ছুরিকাঘাত করে রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যায়। সেখানেই মৃত্যু হয় মোস্তাফিজুরের। পরে সকালে স্থানীয়রা তার রক্তাক্ত মৃতদেহ রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেন। 

জিএ

RTVPLUS