logo
  • ঢাকা রোববার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

পদ্মায় নাব্যতা ও ফেরি সংকটে দৌলতদিয়া ঘাটে ভোগান্তি (ভিডিও)

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে নাব্যতা ও ফেরি সংকট এবং স্রোতের তীব্রতার কারণে ফেরি চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। এদিকে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে নাব্যতা সংকটের কারণে দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি পারাপার বন্ধ থাকায় ওই রুটের যানবাহনগুলো পার হতে গত এক সপ্তাহ ধরে দৌলতদিয়া পাটুরিয়া নৌরুট আসায় যানবাহনের চাপ বেড়েছে দ্বিগুণেরও বেশি।

ফলে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরি ঘাটে পারের অপেক্ষায় শতাধিক যাত্রীবাহী বাস, প্রাইভেটকার ও তিন পণ্যবাহী ট্রাক আটকা পরে দৌলতদিয়া ঘাটে তীব্র যানজটের সৃষ্টি করেছে। আর বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে আটকে পরা ওইসব পরিবহনের যাত্রী ও লোকাল বাসে আসা হাজার হাজার যাত্রীরা পদ্মা পারি দিতে সীমাহীন দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। মহিলা ও বৃদ্ধ যাত্রীদের দুর্ভোগ আরো বেশি। এ কারণে গোয়ালন্দ বাসষ্ট্যান্ড থেকে দৌলতদিয়া ঘাট পর্যন্ত অটো রিকশার ভাড়া বেড়েছে তিন গুণ।

এদিকে আজ শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) সকাল থেকে মাওয়া ঘাট থেকে দুইটি ফেরি এনে দৌলতদিয়ায় ফেরি বাড়লেও দৌলতদিয়া ঘাটে ভোগান্তি কমেনি। যানবাহনের দ্বিগুণ চাপ বেড়েছে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে। এতে যাত্রী, যানচালক ও ঘাটের ফেরির বিআইডব্লিউটিসি’কর্মকর্তা ও  কর্মীদের ভোগান্তি বেড়েছে। আগের চেয়ে অনেক বেশি কাজ করতে হচ্ছে তাদের। 

শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার কারণে গত কয়েকদিন ধরে যানবাহনের চাপ বেড়েছে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েছেন ঢাকামুখী যাত্রী ও চালকরা।

যাত্রী ও চালকদের এই দুর্ভোগ কমাতে শুক্রবার থেকে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে দুটি রো-রো ফেরি বাড়িয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) কর্তৃপক্ষ। তবে দুই ফেরি বাড়ানো হলেও দৌলতদিয়া ঘাটে ভোগান্তি কমেনি। এদিকে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের পাটুরিয়া প্রান্তে নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরিগুলো পরিপূর্ণভাবে যানবাহন লোড করে চলাচল করতে পারছেনা। ফেরিগুলো অনেক দূরত্ব ঘুরে ঘাটে আসতে হচ্ছে। স্রোতের তীব্রতা ও নাব্যতা সংকটের কারণে ফেরিগুলো ঘাটে ভিড়তে সময় লাগছে দ্বিগুণেরও বেশি।  

বিআইডব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক মো. মাহবুবুর রহমান জানান, গত কয়েকদিন ধরে রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে যানবাহনের চাপ বেড়েছে। যানবাহনের চাপ কমাতে গতরাতে এনায়েতপুরী এবং শাহ পরাণ নামে দুইটি বড় ফেরি যোগ করা হয়েছে। বর্তমানে এ রুটে ১৭টি ফেরি চলছে। আর পাটুরিয়া ফেরি ঘাট এলাকায় নাব্যতা সংকট বেশির কারণে ফেরিগুলো পরিপূর্ণভাবে যানবাহন লোড করে চলাচল করতে পারছেনা। ফেরিগুলো অনেক দূরত্ব ঘুরে পারে আসতে হচ্ছে। নব্য সংকট ও স্রোতের তীব্রতার কারণে ফেরি ঘাটে ভিড়তে সময় লাগছে অনেক বেশি।

ইতোমধ্যে পাটুরিয়া ঘাটে নব্যতা সংকট দুর করতে দুইটি ড্রেজার দিয়ে ড্রেজিং করা হচ্ছে।   

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাট শাখার সহ ব্যবস্থাপক মো. মাহাবুব হোসেন জানান, উভয় সংকটের কারণে ঘাটে কিছু যানবাহন ফেরি পারের অপেক্ষায় মহাসড়কে রয়েছে। যানবাহন চালকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সপ্তাহখানেক ধরে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। যে কারণে ট্রাক চালকদের চারদিন পর্যন্ত অপেক্ষা করে ফেরির নাগাল পেতে হচ্ছে। বিশেষ করে গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় ট্রাক আটকে রাখায় খোলা আকাশের নিয়ে যাত্রী যাপন করতে হচ্ছে। আঞ্চলিক মহাসড়কে খোলা আকাশের নিচে থাকার কারণে অনেক জিনিস চুরি হয়ে যাচ্ছে। শুক্রবার সকাল থেকে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি পারাপার ব্যাহত হওয়ায় ও যানজট কমাতে রাজবাড়ী পুলিশ গোয়ালন্দ মোড়ে রাজবাড়ী-কুষ্টিয়া মহাসড়কে কয়েকশত পণ্যবাহী ট্রাক সিরিয়ালে দাঁড় করায়ে রেখেছে।দৌলতদিয়া পাটুরিয়া নৌরুটে অতিরিক্ত যানবাহনের চাপের কারনে এ রুটে প্রতিদিনই যানজটে পরে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যানবাহন চালক ও যাত্রীদের।

দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর রুহুল আমিন জানান, যাত্রীবাহী বাস, ব্যক্তিগত প্রাইভেটকার এবং পচনশীল দ্রব্যের গাড়িগুলোকে অগ্রাধিকারভিত্তিতে পারাপার করা হচ্ছে। যে কারণে অপচনশীল ট্রাক চালকদের কিছুটা ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। ফেরির সংখ্যা বাড়ার কারণে ভোগান্তি কমবে। তবে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌরুটটি সচল হলে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটটি স্বাভাবিক হবে।

জিএ/এম 

RTVPLUS