logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

রায়হান হত্যা: কনস্টেবল টিটু ৫ দিনের রিমান্ডে

রায়হান হত্যা: কনস্টেবল টিটু ৫ দিনের রিমান্ডে
কনস্টেবল টিটু ৫ দিনের রিমান্ডে
সিলেটের বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে রায়হান হত্যার ঘটনায় কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাসকে পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার আদালতের বিচারক জিয়াদুর রহমান টিটু চন্দ্র দাসের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে টিটু চন্দ্রকে সিলেটের অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করে পিবিআই। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মাহিদুল ইসলাম সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করলে বিচারক তার পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

তার আগে আজ দুপুরে এসএমপি রিজার্ভ অফিস থেকে তাকে আটক করে পিবিআই।

গত ১১ অক্টোবর ভোরে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনের শিকার হন রায়হান আহমদ (৩৪)। পরে রোববার সকালে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় ওইদিন দিবাগত রাতে সিলেট কোতোয়ালি থানায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন নিহত রায়হানের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি।

১১ অক্টোবর এসএমপির উপকমিশনার (ডিসি-উত্তর) আজবাহার আলী শেখের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়। বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে রায়হানের মৃত্যুর বিষয়ে প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণ পায় তদন্ত কমিটি। বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ। অন্য তিনজন হলেন- কনস্টেবল হারুনুর রশীদ, কনস্টেবল তৌহিদ মিয়া ও কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাস। চার পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত ছাড়া রায়হানকে ধরে ফাঁড়িতে আনার জন্য বন্দরবাজার ফাঁড়ি থেকে প্রত্যাহার করা হয় এএসআই আশেক এলাহী, কুতুব আলী, কনস্টেবল সজীব হোসেনকে। এসআই আকবর হোসেন পালিয়ে গেলেও বাকি ছয়জন পুলিশলাইনে কড়া নিরাপত্তা হেফাজতে ছিলেন। তাদের মধ্যে থেকে আজ কনস্টেবল টিটুকে আটক করা হয়।

এসএস

RTVPLUS