smc
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৫ কার্তিক ১৪২৭

এসআই আকবরের জন্য হিলি সীমান্তে বাড়তি সতর্কতা

  হিলি প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ

|  ১৮ অক্টোবর ২০২০, ১১:২৪ | আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩:২৬
Extra caution, at the Healy border, rtv news
ছবি সংগৃহীত
সিলেটের বন্দরবাজার থানা পুলিশের নির্যাতনে রায়হান উদ্দিনের মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্ত এসআই আকবরের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারির পরেই হিলি সীমান্তে বাড়তি সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

জয়পুরহাট-২০ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল ফেরদৌস হাসান টিটো আরটিভি নিউজকে জানান, আমরা সীমান্তে সবসময় সতর্ক অবস্থায় থাকি। যাতে করে সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে কেউ যেন পারাপার না হয়। শুধু এসআই আকবরই নয়, যেকোনো অপরাধী এই সীমান্ত পথ ব্যবহার করে যাতে ভারতে যেতে না পারে সেদিকে আমরা কঠোর অবস্থানে ২৪ ঘণ্টা থাকি।

তবে করোনার কারণে হিলি ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট বন্ধ থাকায় এই পথ ব্যবহার করে কেউ ভারতে যেতে পারবে না বলে জানান ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, রায়হান উদ্দিন নামের এক যুবককে বন্দরবাজার থানা পুলিশ গেলো ১০ অক্টোবর বিকেলে আটক করে। ওই দিন রাতে ফাঁড়িতে তার ওপর নির্যাতন চালায় পুলিশ এবং তাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য টাকা দাবি করে। ভোরে অপরিচিত একটি মোবাইল ফোন থেকে ছেলের ফোন পায় রায়হানের বাবা। তাতে ওই ফাঁড়িতে তাকে আটকে রেখে ছেড়ে দেওয়ার জন্য টাকা দাবি করা হচ্ছে বলে জানায় রায়হান। বাবাকে টাকা নিয়ে এসে তাকে উদ্ধারের অনুরোধও করে রায়হান। ছেলেকে বাঁচাতে ভোরে তার বাবা টাকা নিয়ে ওই ফাঁড়িতে গেলে তাকে জানানো হয় রায়হান এখন ঘুমাচ্ছে। সকাল ১০টার দিকে আসতে হবে। পরে সকাল ১০টার দিকে গেল তাকে বলা হয় সিলেট ওসমানী মেডিকেলে কলেজে যেতে। সেখানে গিয়ে তিনি জানতে পারেন তার ছেলে মারা গেছেন।

আরও পড়ুন: 
রায়হান হত্যা: ১১১ জখম, নখ উপড়ানো, চামড়ার নিচে ২ লিটার রক্ত!
রায়হান হত্যা: ৭ দিনেও অধরা এসআই আকবর, ইমিগ্রেশনে সতর্কতা

এরপর মৃত ছেলের শরীরে নির্যাতনের ভয়াবহ চিহ্ন দেখতে পান তিনি।

রায়হানের হাতের নখগুলোও উপড়ানো ছিল। পুলিশ এরপর দাবি করে রায়হানকে ছিনতাইকারী সন্দেহ করে জনতা গণপিটুনি দেওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে। তবে সিটি করপোরেশনের ফুটেজে এর কোনও প্রমাণ মেলেনি। পরে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজে তার ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। বিকেল তিনটার দিকে ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। এশার নামাজের পর জানাজা শেষে তার মরদেহ পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়।

রায়হানকে পুলিশ হেফাজতে অমানবিক নির্যাতনের ঘটনাটি গণমাধ্যমে আলোচিত হচ্ছে। এ ঘটনায় সিলেট কোতোয়ালি থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন নিহতের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নি। মামলা দায়েরের পর এর তদন্তভার দেওয়া হয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে(পিবিআই)।

জেবি

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ৪০৩০৭৯ ৩১৯৭৩৩ ৫৮৬১
বিশ্ব ৪,৪৩,৫৭,৬৭১ ৩,২৫,০৫,১৫৫ ১১,৭৩,৮০৮
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়