smc
logo
  • ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭

করোনার মধ্যেও এগিয়ে চলছে দেশের প্রথম টানেল নির্মাণের কাজ (ভিডিও)

|  ১৪ অক্টোবর ২০২০, ১৫:৪৫ | আপডেট : ১৪ অক্টোবর ২০২০, ১৬:১০
The construction of the country's, first tunnel is also underway, rtv news
ছবি সংগৃহীত

চট্টগ্রামের কর্ণফুলি নদীর তলদেশে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল’  নির্মাণের কাজ এরই মধ্যে ৫৯ শতাংশ শেষ হয়েছে। 

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ২০২২ সালের মধ্যেই শেষ হবে এই টানেল নির্মাণ কাজ। আর টানেলটি নির্মিত হলে দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের অবদান রাখবে বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা। তবে টানেলটির পুরো সুফল পেতে আনোয়ারা অংশে অবকাঠামোগত উন্নয়ন করার কথাও বলছেন ব্যবসায়ীরা। টানেলের কাজ শেষ হলে এ অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থাও আরও সহজ হবে। 

বন্দরনগরী চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মাণ করা দুই টিউব সম্বলিত টানেলটির দৈর্ঘ্য তিন দশমিক চার কিলোমিটার।

এছাড়া টানেলের পশ্চিম ও পূর্ব প্রান্তে ৫.৩৫ কিলোমিটার এপ্রোচ রোড এবং ৭২৭ মিটার ওভারপাস রয়েছে। এই টানেলটির নির্মাণ কাজ শেষ হলে আনোয়ারা  উপজেলাকে নগরীর সঙ্গে সংযুক্ত করবে।

চীনের সাংহাইয়ের মতো করে ‘ওয়ান সিটি টু টাউন’-মডেলে টানেলটি নির্মাণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প পরিচালক হারুন আর রশিদ।

তিনি আরও বলেন, চার লেইনের সড়ক তৈরি হচ্ছে। টানেলের একটি টিউবের বোরিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে। বোরিংয়ের কাজ পতেঙ্গা প্রান্ত থেকে শুরু হয়ে নদীর নিচ দিয়ে এসে আনোয়ারা প্রান্তে গিয়ে শেষ হয়েছে।

বোরিং মেশিন দিয়ে বাকি একটি টিউব তৈরির কাজও শুরু করতে তিন মাস সময় লাগবে। প্রকল্পটির মেয়াদকাল ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। এর মধ্যেই শেষ করা হবে টানেলের কাজ।

ইন্টারন্যাশানাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশ চট্টগ্রামের সভাপতি এস এম আবু তৈয়ব আরটিভি নিউজকে বলেন, বাংলাদেশের মানুষ নতুন একটা জিনিস পাচ্ছে সেটা হচ্ছে টানেল। এটা নিয়ে বিশাল পরিকল্পনা রয়েছে। টানেলের কাজের অগ্রগতিতে আমরা আশাবাদী। তবে একটা জিনিস মাথায় রাখতে হবে টানেলটা প্রস্তুত করার সঙ্গে সঙ্গে আনোয়ারা অংশে যে অবকাঠামো দরকার সেগুলো করতে হবে। তাহলেই টানেলটার সুফল পাওয়া যাবে।

চট্টগ্রাম চেম্বার ও বিজেএমইএ পরিচালক অঞ্জন শেখর দাশ আরটিভি নিউজকে বলেন, টানেলটি দক্ষিণ চট্টগ্রামের সঙ্গে সারা বাংলাদেশের যোগাযোগর ক্ষেত্রে অবদান রাখবে। পাশাপাশি নগরীর ওপর যে জনসংখ্যার চাপ তা কমে আসবে ওয়ান সিটি টু টাউন হয়ে।

বাংলাদেশ সরকারের সেতু বিভাগের বাস্তবায়নাধীন কর্ণফুলীর তলদেশে টানেল নির্মাণ প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয়েছে নয় হাজার ৮৮০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ঋণ হিসেবে চাইনিজ এক্সিম ব্যাংক দিচ্ছে পাঁচ হাজার ৯১৩ কোটি টাকা।

জেবি

RTVPLUS
bangal
corona
দেশ আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৩৯০২০৬ ৩০৫৫৯৯ ৫৬৮১
বিশ্ব ৪,০৩,৮২,৮৬২ ৩,০১,৬৯,০৫২ ১১,১৯,৭৪৮
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • দেশজুড়ে এর সর্বশেষ
  • দেশজুড়ে এর পাঠক প্রিয়