স্বামী জেলে, উকিলের সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ

প্রকাশ | ১১ অক্টোবর ২০২০, ১৯:২১

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ
ধর্ষণ

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে স্বামীকে ছাড়িয়ে আনতে উকিলের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে গেস্ট হাউজে নিয়ে ২৫ বছরের এক বিবাহিত নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণের শিকার হওয়া ঐ নারী শনিবার শ্রীমঙ্গল থানায় একটি অভিযোগ করেন।

রোববার (১১অক্টোবর) শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশের অভিযানে সকালে ধর্ষণের অভিযোগে কাজল মিয়া (৩০), মতিন মিয়াকে (২০) আটক করে মৌলভীবাজার আদালতে পাঠানো হয়।

গত ১৯ (সেপ্টম্বর) সকাল ১১টার দিকে শ্রীমঙ্গল শহরের হামিদা গেস্ট হাউজে ঘটনাটি ঘটে। অভিযুক্ত কাজল মিয়া, মতিন মিয়া ও ধর্ষণের শিকার নারী উপজেলার সাতগাঁও ইউনিয়নের গ্রামের বাসিন্দা।

ধর্ষণের শিকার হওয়া নারী বলেন, গত সেপ্টেম্বর মাসের ১৯ তারিখ জেল খানায় আমার স্বামীকে দেখাতে প্রতিবেশী কাজল মিয়া ও মতিন মিয়া আমাকে নিয়ে যায়। সেখান থেকে বের হয়ে তারা স্বামীকে ছাড়িয়ে আনার জন্য একজন উকিলের সাথে দেখা করতে বলে। উকিলের সাথে দেখা করে তারা আমার স্বামীকে ছাড়িয়ে আনবে বলে আমাকে জানায়। তাদের এই কথা শুনে আমি তাদের সাথে যাই। তারা আমাকে শ্রীমঙ্গল শহরের হামিদা গেস্ট হাউজে নিয়ে একটি রুমে বসতে বলে। দীর্ঘসময় বসার পর তারা দুজনে আমার সাথে থাকা ৫ বছরের শিশুটিকে অন্য কক্ষে নিয়ে আটকে রাখে। এর পর আমাকে দুজনে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে তারা আমাকে গেস্ট হাউজে ফেলে রেখে চলে যায়। আমি সেখান থেকে বাড়ি ফিরে আসি। পরে আমি মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি হই সেখানে আমার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়। আমি অসুস্থ থাকায় থানায় অভিযোগ করতে পারিনি। তবে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল থেকে তথ্য পেয়ে শ্রীমঙ্গল থানার এক এসআই আমার সাথে ফোনে কথা বলেছিলেন। আমি গতকাল তাদের নামে থানায় অভিযোগ করি।

শ্রীমঙ্গল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানা বলেন, আমাদের কাছে অভিযোগ করার পর আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নিয়ে অভিযুক্তদের আজ উপজেলার আমরাইলছড়া থেকে গ্রেফতার করেছি। তাদের আজ রোববার মৌলভীবাজার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। এই বিষয়ে একটি মামলা হয়েছে। আমরা এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছি।

জিএম