স্ত্রীকে টুকরা টুকরা করার পর গর্ভজাত সন্তানকে বস্তায় ভরে পুলিশ সদস্য

প্রকাশ | ০৯ অক্টোবর ২০২০, ১০:০৬ | আপডেট: ০৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:৫৩

বাগেরহাট প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ
পুলিশ সদস্য সাদ্দাম হোসেন

অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যার পর লাশ গুম করার সময় বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার তাফালবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ সদস্য সাদ্দাম হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ফাঁড়িসংলগ্ন ভাড়া বাসায় সাদ্দাম তার স্ত্রী জোসনা বেগমকে (৩৫) হত্যা করে লাশ টুকরো টুকরো করে বস্তায় ভরে গুম করার চেষ্টা করছিল। এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই পুলিশ সদস্য হত্যার কথা স্বীকার করেছে বলে শরণখোলা থানার (ওসি তদন্ত) মো. মফিজুর রহমান নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে স্ত্রীকে গলা টিপে হত্যা করে সাদ্দাম। ঘটনার পর নিহতের আগের পক্ষে ছেলে ও বোনের মেয়ে তাকে খুঁজতে আসে। এ সময় সাদ্দাম তাদের জানায় জোসনা বেগম অন্য বাড়িতে বেড়াতে গেছে। পরে মরদেহ যাতে শনাক্ত না করা যায় এজন্য জোসনার দেহ থেকে মস্তক, দুই হাতের কব্জি এবং পেট থেকে গর্ভজাতক সন্তানকে বের করে মরদেহটি পুলিশের ব্যবহৃত একটি জিও ব্যাগে ভরে ফেলে। 

আরও পড়ুন :
ধর্ষণ, ভিডিও, মারধর, টাকা আত্মসাৎ সবই করলো আ.লীগ নেতা
সাভারে একই সময়ে জমজ বোনসহ ৩ মেয়েকে ধর্ষণ করে বাড়িওয়ালা 

ওসি আরও জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই বাসায় অভিযান চালিয়ে স্ত্রীর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করা হয়। গ্রেপ্তার করা হয় পুলিশ সদস্য সাদ্দামকে। ওসি আরও জানান, নিহত জোসনা বেগমের বাবার বাড়ি রূপসা থানার চাঁনগাও এলাকায়। গ্রেপ্তার সাদ্দামের বাড়ি সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি থানায়। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চললে বলেও জানান ওসি।

জেবি