পাবনায় মৌমাছির কামড়ে ১১০ কবুতরের মৃত্যু

প্রকাশ | ০৩ অক্টোবর ২০২০, ২০:৩৪ | আপডেট: ০৩ অক্টোবর ২০২০, ২১:২৮

পাবনা প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ
পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় মৌমাছির কামড়ে ১১০ কবুতরের মৃত্যু

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলায় মৌমাছির কামড়ে ১১০ কবুতরের মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে বেশ কিছু বিদেশি প্রজাতির দুর্লভ কবুতরও রয়েছে।

গতকাল শুক্রবার (২ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নের বড়ইচরা গ্রামের বাসিন্দা তানিম হোসেনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে ৭০টি কবুতর তাৎক্ষণিক মারা যায়। বাকিগুলোকে মৃত্যুর আগে জবাই করা হয়।

তানিম হোসেন বলেন, মৌমাছির চাক থেকে অপরিচিত দুই-তিনজন মধু সংগ্রহ করতে আসেন। তারা মৌচাকে হাত দেয়া মাত্রই মৌমাছি চারদিকে ছোটাছুটি শুরু করে। এ সময় মৌমাছির ঝাঁক আমার পোষা ১১০টি কবুতরকে কামড় দেয়। এতে কিছুক্ষণের মধ্যেই বিষক্রিয়ায় একে একে কবুতরগুলো মারা যেতে থাকে।

একই সময়ে মৌমাছির কামড়ে আমার চাচাতো ভাই রানা ও জসিম অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাদের ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

তানিম হোসেন বলেন, আমার বেশ কিছু বিদেশি প্রজাতির দুর্লভ কবুতর ছিল। তার মধ্যে কোকা, হোমার, লাল চন্দন, হেয়া চন্দন, গিরিবাজ প্রভৃতি প্রজাতির কবুতরও ছিল। সবগুলো কবুতর একসঙ্গে মারা গেল।

স্থানীয়রা জানায়, তানিম হোসেন লেখাপড়ার পাশাপাশি শখের বশে নিজ বাড়ির ছাদে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন প্রজাতির কবুতর পালন করতেন। ১১০টি কবুতর একসঙ্গে মারা যাওয়ায় তানিমের প্রায় অর্ধলক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে।
পাবনার মৌচাষি সমিতির সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন আরটিভি অনলাইনকে বলেন, অদক্ষ হাতে মৌচাক ভাঙতে গেলে এমন ঘটনা ঘটে। এজন্য দক্ষ ব্যক্তিদের মৌচাক ভাঙতে হয়।

আরও পড়ুন: 
নিজের রেকর্ড নিজেই ভাঙলেন সালাউদ্দিন (ভিডিও)

পি