বিপন্ন বোস্তামী কচ্ছপ জন্ম দিয়েছে ২০৫ বাচ্চা!

প্রকাশ | ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৫৪ | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০৬

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ
বিপন্ন বোস্তামী কাছিম

অতি বিপন্ন প্রাণীর তালিকায় থাকা  চট্টগ্রামের বোস্তামী কাছিমের এবার লকডাউনের সময় ২০৫ টি বাচ্চা হয়েছে। কয়েক দশক ধরে প্রজনন স্থল সংকুচিত হয়ে পড়ায় ও আবাসস্থল দূষণের কারণে হুমকির মুখে পড়েছিলো এ কাছিম। কিন্তু এবার করোনা কালে লকডাউনের সময় কাছিমের ডিম সংগ্রহ করা হয়েছিল এবার ৭৫২টি ডিম, যেগুলো থেকে বাচ্চা হয়েছে ২০৫টি । যা এক যুগের মধ্যে রেকর্ড। বর্তমানে বাচ্চাগুলোকে লালন পালন করা হচ্ছে, ছয় মাস বয়স হলে ছাড়া হবে বোস্তামীর পুকুরে । 

চট্টগ্রামের বায়েজিদ বোস্তামী মাজারের পুকুরে প্রায় পাঁচশ বিরল ও বিপন্ন প্রায় কাছিম এখনও টিকে আছে। কয়েকশ' বছর ধরে এগুলো মাজারের পুকুরে বসবাস করে আসছে। আর এই কাছিম বেশ কয়েক বছর ধরে আন্তর্জাতিক প্রাণী সংরক্ষণ সংস্থা আইইউসিএনের অতি বিপন্ন প্রাণীর তালিকায় রয়েছে।  পুকুরের পূর্বপাশে কাছিমের একমাত্র প্রজনন কেন্দ্র নষ্ট হয়ে যাওয়ায় কয়েক বছর ধরে ব্যাহত হচ্ছিল এদের স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় ডিম দেওয়া ও বাচ্চা ফোটানো। সম্প্রতি মাজারের পাশে বন বিভাগ একটি প্রজনন কেন্দ্র তৈরি করে দেওয়ায় সংকটাপন্ন এই কাছিম করোনাকালেও সোনালি দিন ফিরে পেয়েছে। 

বায়েজিদ বোস্তামি মাজারের মোতোয়ালি অ্যাডভোকেট  খোরশেদ আলম আরটিভি নিউজকে জানান, পুকুরে থাকা বড় কাছিমগুলো থেকে সংগ্রহ করা হয় ৭৫২টি ডিম, যেগুলো থেকে বাচ্চা হয়েছে ২০৫টি, যা এক যুগের মধ্যে রেকর্ড। বোস্তামী কাছিম পৃথিবীতে একটি চরম সংকটাপন্ন প্রাণী। তাই তাদের বংশ বৃদ্ধিতে দুই বছর ধরে মাজার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কাজ করছে একটি বেসরকারি সংস্থা । ২০১৯ সালে ৫০টি ডিম থেকে ৩৪টি বাচ্চা পেয়েছিলো তারা। আর এবার ৭৫২টি ডিম থেকে ২০৫টি বাচ্চা হয়েছে। 

পরিবেশ সংগঠন ক্রিয়েটিভ কনজারভেশন অ্যালায়েন্সের ফ্যাসিলিটি এর ম্যানেজার ফাহিম জাহান জানান, মাজারের পাশে আলাদা প্রজননকেন্দ্রে  বর্তমানে বাচ্চাগুলোকে লালনপালন করা হচ্ছে। বড় হলে পুকুরে ছাড়া হবে। বনবিভাগের সাথে কথাবার্তা হচ্ছে। যদি পর্যাপ্ত পরিমাণ কাছিম হয় তাহলে পুকুরের পর নদীতে ছাড়ার ও পরিকল্পনা আছে। 

বাচ্চা পরিচর্যা কারী এরশাদ মিয়া বলেন,  কাছিমগুলোকে পাউরুটি, মুরগির মাংসও খেতে দেওয়া হয়। এগুলো যাতে ভালো থাকে, সে জন্য প্রজননকেন্দ্রের পানি কিছুদিন পরপর পাল্টানো হয়। 

বায়েজিদ বোস্তামি মাজারে আসার পাশাপাশি বোস্তামি কাছিম দেখতে প্রতিদিনই ভিড় করে নানা বয়সের মানুষ। এমনকি বড় কাছিমগুলোর মুখে তুলে দেয় কলা, পাউরুটি, মুরগীর মাংসসহ নানা ধরনের খাবার। 

এসএ/জিএ