পেঁয়াজ বহন করা ট্রাক যেকোনো সময় ভোমরা বন্দরে প্রবেশ করতে পারে

প্রকাশ | ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৯:৩৮ | আপডেট: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:৪৮

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ
পেঁয়াজ

ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় ভোমরা স্থলবন্দরের বিপরীতে ঘোজাডাঙ্গা কাস্টম অফিসের সামনে দেড় শতাধিক পণ্যবাহী পেঁয়াজের ট্রাক আটকা পড়েছে। সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে চতুর্থ দিনের ন্যায় পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাতক্ষীরায় চলছে টাস্কফোর্সের অভিযান।

আজ বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩ টা পর্যন্ত ভারত থেকে কোনো পেঁয়াজের ট্রাক ভোমরা স্থলবন্দরে প্রবেশ করতে দেখা যায়নি। তবে, ভারতের ঘোজাডাঙ্গায় ব্যবসায়ীদের পূর্বে এলসি করা প্রায় দেড় শতাধিক পণ্যবাহী পেঁয়াজের ট্রাক ভোমরা বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে।

ভোমরা স্থলবন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম জানান, গত সোমবার থেকে হঠাৎ করেই ভারতীয় কর্তৃপক্ষ কোনো কিছু না জানিয়ে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছেন। এর ফলে গত চারদিন ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে কোনো পেঁয়াজবাহী ট্রাক প্রবেশ করেনি। ভারতীয় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি পেলেই পূর্বের এলসিকৃত এ সব পেঁয়াজবাহী ট্রাক যেকোনো সময় ভোমরা বন্দরে প্রবেশ করতে পারে। 

সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের কোষাধ্যক্ষ মাকসুদ খান জানান, পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য বৃদ্ধি করে তারা খুব দ্রুতই আবারও পেঁয়াজ রপ্তানি করবে। ভারতীয় পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য ছিল ২৫০ ডলার। রপ্তানি মূল্য বৃদ্ধি করে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি করতে পারে বলে রপ্তানি কারকদের একটি সুত্র জানিয়েছে।

ভোমরা স্থলবন্দরের শুল্ক ষ্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা মহসিন হোসেন জানান, ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে গত এক সপ্তাহে (গত ৬ সেপ্টেম্বর থেকে ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত) ৫৩৩ টি ট্রাক যোগে মোট পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে ১২ হাজার ৪৩৭ মেট্রিক টন।

এদিকে, ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ থাকায় বাংলাদেশের পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা যাতে পেঁয়াজ মজুদ রেখে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির মাধ্যমে বাজারে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি না করতে পারে সেজন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে টাস্কফোর্স গঠন করা হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোছা. মুরশিদা খাতুন জানান, বুধবার সকাল থেকে তারা ভোমরা স্থলবন্দরসহ বিভিন্ন পাইকারী ও খুচরা বাজার মনিটরিং করছেন।

এসএ/এম