logo
  • ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ৩ মাঘ ১৪২৭

কক্সবাজার প্রতিনিধি, আরটিভি

  ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:১০
আপডেট : ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:৪৯

ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে আরও দুটি মামলার আবেদন

মামলা টেকনাফ প্রদীপ
টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ
টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাসসহ আরও ৫৬ জনের বিরুদ্ধে ক্রসফায়ারের নামে হত্যার অভিযোগে আরও দুইটি মামলার আবেদন আদালতে করা হয়েছে।

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়ার আবদুল আলিম ও হোয়াইক্যংয়ের মুফিজ আলম নামের দুইজনকে ক্রসফায়ারের নামে হত্যার অভিযোগে এই দুটি মামলার আবেদন করা হয়।

আদালত ফৌজদারি মামলার এজাহার দুটি আমলে নিয়ে ওই ঘটনা সংক্রান্ত কোনও মামলা হয়েছে কিনা তা আগামী ধার্য দিনের মধ্যে আদালতকে জানাতে টেকনাফ থানার ওসিকে নির্দেশ করা হয়েছে। 

আজ বৃহস্পতিবার নিহত বাহারছড়ার আবদুল আমিনের ভাই নুরুল আমিন ও মুফিজ আলমের ভাই মো. সেলিম বাদী হয়ে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (টেকনাফ-৩) হেলাল উদ্দীনের আদালতে এই দুটি মামলার আবেদন করেন। বাদীপক্ষের আইনজীবী আবু মুছা সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, সুপারি ব্যবসায়ী আবদুল আমিনের কাছে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করেন টেকনাফ থানা পুলিশ। কিন্তু টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান তিনি। এতে একদল পুলিশ গেল বছরের ২১ সেপ্টেম্বর সকালে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। থানায় নিয়েও পাঁচ লাখ টাকা দাবি করেন ওসি। শেষে বাধ্য হয়ে ৫০ হাজার টাকা দেয় আবদুল আলিমের পরিবার। বাকি টাকার জন্য ৩০ সেপ্টেম্বর তার স্ত্রীকে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে স্ত্রীর কাছে বাকি টাকা দাবি করে পুলিশ। টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানানোর কারণেই একদল পুলিশ আবদুল আমিনকে গুলি করে হত্যা করে।

মুফিজ আলমের মামলার বাদী এজাহারে উল্লেখ করেন, টেকনাফ থানা পুলিশ মুফিজ আলমের কাছে ১৫ লাখ টাকা দাবি করে। কিন্তু টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তাকে ধরে নিয়ে যায় পুলিশ। একপর্যায়ে টাকা না দিলে ক্রসফায়ারে হত্যার হুমকি দেয়। তাই বাধ্য হয়ে ২০১৯ সালের ১২ জুলাই পুলিশকে ৬ লাখ টাকা দেই। টাকা নেয়ার পরদিনেই মুফিজ আলমকে ক্রসফায়ারের নামে হত্যা করা হয়।

আইনজীবী আবু মুছা মোহাম্মদ বলেন, ফৌজদারি মামলার এজাহার দুটি আমলে নিয়েছেন আদালত এবং ওই ঘটনা সংক্রান্ত অন্য মামলা আছে কিনা তা আগামী ধার্য দিনের মধ্যে আদালতকে জানাতে টেকনাফ থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

জেবি

RTV Drama
RTVPLUS