অপহরণের ২৪ ঘণ্টা পর কৃষককে ছেড়ে দিলো মিয়ানমার 

প্রকাশ | ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:৫১ | আপডেট: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৫:৪৩

বান্দরবান প্রতিনিধি, আরটিভি নিউজ
কৃষক মো. ইউছুপ

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত থেকে অপহৃত কৃষককে ২৪ ঘণ্টা পর ছেড়ে দিয়েছে মিয়ানমার। এ জন্য কোনো পতাকা বৈঠক হয়নি। 

মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ৪৭ নম্বর পিলার এলাকা দিয়ে ওই কৃষক ছাড়া পান। 

জানা গেছে, এ ঘটনার জন্য বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ১১ বিজিবির পক্ষ থেকে আজ বুধবার আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদলিপি পাঠানো হবে। 

এর আগে সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় বাংলাদেশ মিয়ানমার সীমান্তের ফুলতলী জারুলিয়াছড়ি সীমান্তে গবাদিপশু চরানোর সময় বাংলাদেশী কৃষক মো. ইউছুপকে ধরে নিয়ে যায় মিয়ানমারের নৃগোষ্ঠীর লোকেরা। এ ঘটনার জন্য মিয়ানমারে বিজিপির সঙ্গে থাকা আনসার (নাঠালা) বাহিনীর সদস্যরা জড়িত বলে সীমান্তের লোকজন ও অপহৃতের পরিবার ধারণা করেছিল। ঘটনার বিষয়ে স্থানীয়দের সাথে আলাপে জানা গেছে, ফুলতলী এলাকার জনৈক ইমাম হোসেনসহ কিছু ইয়াবা কারবারি মিয়ানমারের কিছু নৃগোষ্ঠীর কাছ থেকে ইয়াবা কিনে টাকা পরিশোধ করেনি। আর সেই টাকা আদায়ের হাতিয়ার হিসেবে বাংলাদেশি কৃষক মো. ইউছুপকে ধরে নিয়ে যায়। তাদের ধারণা ছিল, কৃষক ইউছুপের পরিবারের মাধ্যমে ইমাম হোসেন ও অন্যান্য ইয়াবা কারবারিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা সহজ হবে। 

মিয়ানমার সীমান্ত থেকে ছাড়া পাওয়ার পর মো. ইউছুপ জানান, তাকে কিছু উপজাতি লোক ধরে নিয়ে যায়। তারা পোশাকধারী ছিল না। জারুলিয়াছড়ি এলাকার ইয়াবা কারবারিদের কাছ থেকে টাকা আদায়ের জন্য তাকে নিয়ে যায়। 

নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আবছার ইমন ও ঘটনাস্থল এলাকার ইউপি মেম্বার আলী হোসেন জানান, মূলত ইয়াবার টাকা আদায়ের জন্য কৃষক ইউছুপকে নিয়ে গিয়েছিল মিয়ানমারের কিছু উপজাতি লোক। তবে সেই ইয়াবা কারবারিদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। 

নাইক্ষ্যংছড়ি ১১ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল শাহ আব্দুল আজিজ আহমেদ বলেন, সীমান্তে অন্যায়ভাবে অনুপ্রবেশ ও ঘোরাফেরাসহ কৃষক ইউছুপকে ধরে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে মিয়ানমার বিজিপিকে প্রতিবাদলিপি পাঠানো হবে। 

জিএ