Mir cement
logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

মহাসড়কে মহাযানজট শুরু

মহাসড়কে মহাযানজট শুরু

কঠোর লকডাউন শিথিলের দ্বিতীয় দিনে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে তীব্র যানবাহন সৃষ্টি হয়েছে। মহাসড়কগুলোতে শুক্রবার (১৬ জুলাই) সকাল থেকেই যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ বেড়েছে। মহাসড়কে পণ্যবাহী গাড়িসহ ব্যক্তিগত গাড়ির উপস্থিত বেশি দেখা গেছে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লা ময়নামতি, দাউদকান্দি টোল প্লাজা, গৌরিপুর বাসস্ট্যান্ড, ইলিয়াটগঞ্জ, ফেনী, মিয়ারবাজার ও চৌদ্দগ্রাম অংশে যানবাহনের অতিরিক্ত চাপ রয়েছে। ধীরে ধীরে যানবাহন চলাচল করছে।

দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহুরুল হক বলেন, গতকাল বৃহস্পতিবার থেকেই মহাসড়কে যানবাহনের চাপ বেড়েছে। এতোদিন যানবাহন বন্ধ থাকায় গতকাল থেকে একযোগে সড়কে সব ধরনের গাড়ি বের হয়েছে। গতকালের মতো আজও (শুক্রবার) সকাল থেকেই মহাসড়কে যানবাহন বেশ উপস্থিতি। সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সড়কে গাড়ির চাপ বাড়ছে।

তিনি আরও বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পণ্যবাহী পরিবহনগুলোর সংখ্যাই বেশি। একদিকে পশুবাহী ট্রাক অন্যদিকে রপ্তানিমুখী গার্মেন্টসের পণ্যবাহী কন্টেইনারের চাপ রয়েছে।

অন্যদিকে কঠোর লকডাউন শিথিলের দ্বিতীয় দিনে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা। যানজটের প্রভাব রাজধানী ঢাকা ও তার আশপাশের সড়কে পড়েছে।

শুক্রবার (১৬ জুলাই) সকালে যানজটের সৃষ্টি হলে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা বাড়তে থাকে। এতে করে কাকলী, বনানী, বিশ্বরোড, খিলক্ষেত, এয়ারপোর্ট, আব্দুল্লাহপুর থেকে গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত তীব্র যানজট দেখা যায়।

ঢাকার প্রবেশমুখ আব্দুল্লাপুরে ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্বে থাকা একজন পুলিশ বলেন, ঈদের আগে ঘরমুখো যাত্রীর চাপ বাড়ায় সকাল সাড়ে আটটার পর থেকেই যানজট শুরু হয়।

ট্রাফিক পুলিশ ও যানবাহন চালকদের মতে, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের এয়ারপোর্ট থেকে চান্দনা চৌরাস্তা পর্যন্ত চলছে বিআরটি প্রকল্পের কাজ। এ কাজ করতে গিয়ে সড়কে তৈরি করে রাখা হয়েছে গর্ত, ফেলে রাখা হয়েছে বালু-মাটিসহ বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী। পুরো সড়কই এখন খানাখন্দে ভরা। এসব কারণে যানবাহন চলাচল করতে না পেরে প্রতিদিনই সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। এর মাঝে আজ সকাল থেকে যানজটের সৃষ্টি হলে তা ছড়িয়ে পড়ে রাজধানীতে।

রাজধানীর বিশ্বরোড, খিলক্ষেত, এয়ারপোর্ট, আজমপুর ও আব্দুল্লাহপুর এলাকায় দায়িত্বে থাকা ট্রাফিক পরিদর্শকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সকাল থেকেই গাজীপুরে সৃষ্টি হওয়া যানজট চলে যায় রাজধানীর মহাখালী পর্যন্ত। এর মধ্যে আব্দুল্লাহপুর থেকে প্রায় বনানী পর্যন্ত সড়ক জুড়েই এখন যানজট। সকাল থেকেই যানবাহনগুলো চলাচল করছে খুব ধীরগতিতে।

ভূঁইয়া পরিবহনের চালক মুসা মিয়া বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের কানসার্ট থেকে বুধবার বিকেলে ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করি। ঢাকায় এসে সকাল থেকে গাড়ি চালাব। কিন্তু যানজটে আটকা পড়ছি। দীর্ঘ যানজটের কারণে আট ঘণ্টার স্থলে বারো ঘণ্টা অতিবাহিত করে আব্দুল্লাপুর আসতে পেরেছেন মুসা মিয়া।

এফএ

মন্তব্য করুন

RTV Drama
RTVPLUS