logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬

মানবতাবিরোধী অপরাধ: রাজশাহীর মুসার রায় মঙ্গলবার

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১২:৩২ | আপডেট : ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৫১
মানবতাবিরোধী অপরাধ
মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় রাজশাহীর পুঠিয়ার মো. আব্দুস সামাদ মুসা ওরফে ফিরোজ খাঁর বিরুদ্ধে আগামীকাল মঙ্গলবার রায় ঘোষণা করা হবে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল সূত্রে জানা গেছে।

সোমবার বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল রায়ের এ তারিখ ঘোষণা করেন।

তার বিরুদ্ধে একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা, লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ তদন্তে প্রমাণিত হয়। এ মামলায় উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে গত ৮ জুলাই মামলাটি অপেক্ষমাণ (সিএভি) রাখেন ট্রাইব্যুনাল।

এ বিষয়ে ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর জাহিদ ইমাম বলেন, ‘পাকিস্তানি সেনাবাহিনী ও সহযোগীদের নিয়ে আসামি মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যা-হত্যাসহ যেসব অপরাধ করেছে মামলার শুনানি ও যুক্তিতর্কে সেসব তথ্য-প্রমাণ, সাক্ষ্য আমরা আদালতে তুলে ধরেছি। ভিকটিমসহ পরিবারের ১৪ জন সাক্ষী আসামির বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিয়েছেন। ফলে আমরা আসামির সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড চেয়েছি আদালতে।’

এটি হবে ট্রাইব্যুনালের ৩৯তম রায়। মুক্তিযুদ্ধের সময় পশ্চিমভাগ এবং গোটিয়া গ্রামে আাদিবাসী ও বাঙালিদের ওপর নৃশংস হত্যাযজ্ঞ চালান আব্দুস সামাদ মুসা ওরফে ফিরোজ খাঁ। ১৯৭১ সালের ১২ এপ্রিল পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী পুঠিয়া আক্রমণ করে মানুষ হত্যা ও অগ্নিসংযোগ শুরু করলে মুসা হানাদার বাহিনীর সঙ্গে যোগ দেন। মুসার বিরুদ্ধে হত্যা, অগ্নিসংযোগ ও লুটপাটের অভিযোগ রয়েছে। 

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ১১ ডিসেম্বর মামলাটির তদন্ত শুরু হয়। তখন এ মামলায় আসামি করা হয়েছিল ছয়জনকে। কিন্তু তদন্ত চলার সময়ই বাকি পাঁচ আসামির মৃত্যু হয়। বাকি থাকেন একমাত্র আসামি মো. আব্দুস সামাদ (মুসা) ওরফে ফিরোজ খাঁ। তদন্ত চলার সময় নাশকতা মামলায় গ্রেপ্তার হন তিনি। পরে ২০১৭ সালের ২৪ জানুয়ারি মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়। এরপর ট্রাইব্যুনাল তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

পি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়