নারী ইউপি সদস্যকে তুলে নিয়ে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ

প্রকাশ | ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৩:২৭

রাজবাড়ী প্রতিনিধি

রাজবাড়ী সদর উপজেলার বরাট ইউনিয়নের সাবেক নারী ইউপি সদস্যকে (৪০) তুলে নিয়ে যৌন নির্যাতন করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার রাতে ইউনিয়নের সাভার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতিতা নারী ইউপি সদস্য জানান, তিনি পর পর দুইবার বরাট ইউনিয়নের [১,২ও৩] ওয়ার্ডে নারী ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়ে জনগণের সেবা করেছেন এবং গতবার তিনি নির্বাচনে ২৩ ভোটে হেরে যান।

তিনি বলেন, গতকাল মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে বরাট ইউনিয়নের রাধাকান্তপুরের বাহা মাতব্বর, উড়াকান্দার আরশাদ আলম ও সাভারের পরিতোষ নামের তিন ব্যক্তি পুলিশের কথা বলে আমাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। বাড়ি থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে একটি ফাঁকা মাঠের মধ্যে নিয়ে তারা আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে ধর্ষণ করে। সেই সঙ্গে পুলিশের ভয় দেখিয়ে ও জানে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে বলে এ কথা যেন কাউকে না বলি।

আমাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার বিষয়টি পরিবার ও প্রতিবেশীরা জানলে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পরে আমার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আমাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে।

নির্যাতিতা নারী ইউপি সদস্য আরও বলেন, এ ঘটনাটি নির্বাচনকালীন সময়ে রাজবাড়ীতে আসা সেনাবাহিনীকে জানাই। সেনাবাহিনী বিষয়টি শুনে আমাকে জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠান। জেলা প্রশাসক বিষয়টি মুঠোফোনে পুলিশ সুপারকে জানান। পরে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য আমাকে রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সদর থানা পুলিশ রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে মেডিকেল পরীক্ষা করা হয়েছে।

বরাট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুজ্জামান সালাম জানান, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। এ কাজটি শাস্তিযোগ্য। ঘটনার মামলা হয়েছে। পুলিশ ওই ধর্ষকদের খুজে গ্রেপ্তার করে আদালতে দিয়ে উপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করুক।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী বলেন, আমার কাছে ধর্ষণের অভিযোগ নিয়ে এক নারী এসেছিলেন। এ বিষয়ে পুলিশ সুপারের সঙ্গে কথা বলেছি এবং ওই নারীকে মামলা করার পরামর্শ দিয়েছি।

জেএইচ