logo
  • ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ ২০২১, ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭

কারাগারে নারীসঙ্গ: জেল সুপার ও জেলারসহ ১১ জন বরখাস্ত

Women's association in jail: 11 people including jail superintendent and district magistrate dismissed
ফাইল ছবি

গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১ এর সিনিয়র জেল সুপার, জেলার এবং ডেপুটি জেলারসহ ১১ জনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ছাড়া আরও ৭ জনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হল-মার্কের কারাবন্দি মহাব্যবস্থাপক (জিএম) তুষার আহমদ বিধি লঙ্ঘন করে এক নারীর সঙ্গে সময় কাটানোর ঘটনায় এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ওই সময় কারাগারের দায়িত্বে ছিলেন তারা। গতকাল (০৫ ফেব্রুয়ারি) বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি কারা অধিদপ্তরে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

বরখাস্তরা হলেন তৎকালীন জ্যেষ্ঠ জেল সুপার রত্না রায়, জেলার নূর মোহাম্মদ মৃধা এবং ডেপুটি জেলার গোলাম সাকলায়েন। বরখাস্ত অন্যদের মধ্যে ৬ জন কারারক্ষী, একজন সহকারী প্রধান কারারক্ষী এবং একজন সার্জেন্ট ইনস্ট্রাক্টর রয়েছেন।

এর আগে কারাগারে কয়েদির নারীসঙ্গের ঘটনায় ১৮ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে দায়ী করে তাদের সবাইকে বরখাস্তের সুপারিশ করে কারা অধিদপ্তরের তদন্ত কমিটি। গতকাল কারা অধিদপ্তর থেকে প্রতিবেদনটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়। প্রতিবেদনে আলোচিত ওই ঘটনায় কাশিমপুর কারাগার-১-এর ১৮ কর্মকর্তা-কর্মচারীর সম্পৃক্ততা উঠে আসে। হল-মার্ক গ্রুপের কারাবন্দি জিএম তুষার আহমদকে বিধি ভঙ্গ করে নারীসঙ্গের সুবিধা দেওয়ায় গত ২১ জানুয়ারি তিন সদস্যের এই তদন্ত কমিটি গঠন করে কারা কর্তৃপক্ষ। কমিটি তদন্ত প্রতিবেদনে ১৮ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করা, চাকরিবিধি অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া, বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া, কেন্দ্রীয় কারাগারের পরিবর্তে জেলা কারাগারে পদায়ন করা ও কম গুরুত্বপূর্ণ স্থানে পদায়ন করাসহ ২৫টি সুপারিশ করে।

বরখাস্তের আগে সিনিয়র জেল সুপার রত্না রায়, জেলার নূর মোহাম্মদ মৃধা ও ডেপুটি জেলার গোলাম সাকলায়েনসহ ৫ জনকে কামিশপুর থেকে প্রত্যাহার করে কারা অধিদপ্তরে সংযুক্ত করা হয়েছিল।

গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে বন্দি হল-মার্কের জিএম তুষার আহমদ বিধি লঙ্ঘন করে এক নারীর সঙ্গে সময় কাটান। এতে কারাগারের দুই কর্মকর্তা সহযোগিতা করেন বলে অভিযোগ ওঠে। গত ৬ জানুয়ারি কারাগারের ক্লোজড সার্কিট টেলিভিশনের (সিসিটিভি) ক্যামেরায় ধারণ হওয়া ওই ভিডিও ক্লিপ গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে তোলপাড় হয়। ঘটনার তদন্তে জেলা প্রশাসন গত ১২ জানুয়ারি তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে। ওই কমিটিও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসনের কমিটি।

গত ২২ জানুয়ারি কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-১-এর ভেতর হল-মার্ক কেলেঙ্কারির মামলার সাজাপ্রাপ্ত বন্দি তুষার আহমেদের নারীসঙ্গের ঘটনাটি প্রকাশ পায়। পরে কাশিমপুর-১-এ নতুন কারা তত্ত্বাবধায়ক (জেলার) হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয় রীতেশ চাকমাকে।

সুরক্ষা সেবা বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. শহিদুল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেন, জেল সুপার ও জেলারকে ররখাস্ত করা হয়েছে। বাকিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইজিপি প্রিজনকে বলা হয়েছে।

বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সৈয়দ বেলাল হোসেন বলেন, ২টি তদন্ত কমিটি যা যা সুপারিশ করেছে এবং যাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে, ঠিক তাই করা হয়েছে।

কেএফ

RTV Drama
RTVPLUS