একনজরে নতুন সিইসি নুরুল হুদা

প্রকাশ | ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৩:০৫ | আপডেট: ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৩:৩৫

অনলাইন ডেস্ক

কে এম নুরুল হুদা। দেশের ১২তম প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি)। তিনি ১১তম সিইসি কাজী রকিব উদ্দিনের স্থালাভিষিক্ত হলেন। সোমবার রাত ৯টায় মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম নতুন নির্বাচন কমিশনারদের নাম জানান সাংবাদিকদের।

এর আগে সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে নতুন নির্বাচন কমিশন নিয়োগে রাষ্ট্রপতির কাছে ১০ জনের নাম সুপারিশ করে সার্চ কমিটি। সেই তালিকা থেকে কে এম নুরুল হুদাকে প্রধান করে ৫ সদস্যের নির্বাচন কমিশন নিয়োগ করেন রাষ্ট্রপতি।

আসছে ৮ ফেব্রয়ারি শেষ হচ্ছে কাজী রকিবউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ। এরপরই দায়িত্ব নেবেন নতুন কমিশন। তাদের অধীনেই ২০১৯ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে।

আরটিভি অনলাইনের পাঠকদের জন্য নতুন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদার সংক্ষিপ্ত পরিচয় তুলে ধরা হলো।

কে এম নুরুল হুদার জন্ম পটুয়াখালির বাউফালে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নেন তিনি। দেশকে হানাদার মুক্ত করতে ৯ নম্বর সেক্টরে যুদ্ধ করেন। ১৯৭৩ সালে সরকারি কর্মকমিশনের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ওই বছরের ৩০ জুলাই যোগ দেন প্রশাসন ক্যাডারে।

কর্মজীবনে জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ফরিদপুর ও কুমিল্লায়। বিএনপি সরকারের সময়ে ডিসি হিসেবে ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেরুয়ারি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে ১২ জুলাই নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা রয়েছে তার।

এছাড়াও কে এম নুরুল হুদা ১৯৮৫ সালে উপজেলা নির্বাচন ও ১৯৮৬ সালের সংসদ নির্বাচনেও নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেন।

কর্মজীবনে ‍তিনি ঢাকা সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী ছিলেন। এছাড়াও তিনি পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয় এবং সংসদ সচিবালয়ের যুগ্মসচিব ও অতিরিক্ত সচিবের দায়িত্বও পালন করেন।

বিএনপি জোট সরকারের আমলে কিছুদিন ওএসডি ছিলেন। পরে ২০০৬ সালে সচিব হিসেবে অবসরে যান তিনি।

সবশেষ তিনি বাংলাদেশ মিউনিসিপাল ডেভেলপমেন্ট ফান্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন।

পারিবারিক জীবনে তিনি ৩ সন্তানের পিতা। নুরুল হুদা-হুসনে আরা দম্পতির বড় ছেলে প্রকৌশলী, মেজ মেয়ে পিএইচডি শেষে যুক্তরাষ্ট্রের  থাকেন, ছোট মেয়ে উচ্চতর ডিগ্রির জন্য কানাডায় রয়েছেন।

এইচটি/জেএইচ