logo
  • ঢাকা সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

বিজিবির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের বিএসএফের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:৩৯ | আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ২৩:৫১
বিজিবি, বিএসএফ
ছবি: টাইমস অব ইন্ডিয়া
ভারতের বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের এক জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যার ঘটনায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। খবর ভারতের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

গণমাধ্যমটিতে বলা হয়েছে, ‘গত বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের আন্তর্জাতিক সীমানায় একটি পতাকা বৈঠকের সময় বিজিবির এক সেনার একে-47 রাইফেল থেকে ছোড়া গুলিতে বিএসএফের হেড কনস্টেবল বিজয় ভান সিং (৫১) নিহত এবং রজবির যাদব নামের আরেক জওয়ান আহত হন।’

বিএসএফের এক বিবৃতির বরাত দিয়ে গণমাধ্যমটিতে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ‘এদিন সকাল নয়টার দিকে বিএসএফের একটি দল পদ্মা নদীতে বিজিবির সেনাদের এবং ভারতীয় জেলেদের মধ্যকার একটি ঝামেলা মেটাতে গেলে মুর্শিদাবাদ জেলায় ঘটনাটি ঘটে।’

বিজিবির বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের বিষয়টি মুর্শিদাবাদের সুপারিন্টেন্ডেন্ট অব পুলিশ মুকেশ কুমার জানিয়েছেন উল্লেখ করে প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ‘হ্যাঁ, আমরা বিএসএফের পক্ষ থেকে একটি অভিযোগ পেয়েছি। একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং মামলাটি তদন্তাধীন আছে।’

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, ‘বিএসএফের কর্মকর্তারাও বিজিবির বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বিএসএফের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা এই বিষয়ে বিজিবির দাবি মিথ্যা উল্লেখ করে জানান, ভারতের পক্ষ থেকে একটি গুলিও ছোড়া হয়নি। বিজিবির দাবি, টহল দলটি আত্মরক্ষার জন্য গুলি ছোড়ে।’

ভারতের সীমান্ত প্রতিরক্ষা বাহিনীটির আরেক কর্মকর্তার বরাতে গণমাধ্যমটির প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ‘বিএসএফ ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিলেও আমরা নিয়ম অনুসারে থানায় মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। আমরা প্রথমে গুলি ছুড়েছিলাম বলে বিজিবি করা অভিযোগটি সত্য নয়। আমরা একটি গুলিও ছুড়িনি।’

কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমটি জানায়, ‘বিএসএফের অনুমতি নিয়ে আন্তর্জাতিক সীমানার মধ্যে মাছ ধরা তিন ভারতীয় জেলেকে বিজিবির টহল দলটি আটক করার পর ঝামেলা হয়। বিজিবির দলটি পরে দুই জেলেকে ছেড়ে দিয়ে বিএসএফকে জানায় তৃতীয়জনকে আটকে রাখা হয়েছে।’

ভারতীয় গণমাধ্যমটির মতে, ‘এরপর ১১৭তম ব্যাটালিয়নের বিএসএফ পোস্ট কমান্ডার, একজন সাব-ইন্সপেক্টর একটি ছয় সদস্যের দল নিয়ে সমস্যাটির সমাধান করতে যান। কিছুক্ষণ পর সায়েদ নামের এক বিজিবি জওয়ান পেছন থেকে ভান সিংকে গুলি করেন।’

বিএসএফের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা শুক্রবার দিল্লিতে জানান উল্লেখ করে প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ‘ভারতীয় সৈন্যরা বিজিবির কাছ থেকে তৃতীয় জেলেকে জোর করে ছাড়িয়ে নেয়ার চেষ্টা করেনি। তারা বিজিবির আহ্বানে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে একটি পতাকা বৈঠক করতে গিয়েছিল।’

তার বরাত দিয়ে প্রতিবেদনটিতে আরও উল্লেখ করা হয়, ‘এই ঘটনার পর দুই পক্ষের কমান্ডিং কর্মকর্তাদের টেলিফোনিক কথোপকথনের সময়ও বিজিবি বলেনি যে বিএসএফের কর্মকর্তারা আইবি লঙ্ঘন করেছে বা বাংলাদেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করেছে।’

ভারতীয় গণমাধ্যমটি আরও জানায়, ‘বৃহস্পতিবারের ঘটনার পর ইন্দো-বাংলা সীমান্তের চার হাজার ৯৬ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। প্রণব মন্ডল নামের তৃতীয় জেলে এখনও বাংলাদেশের পুলিশি হেফাজতে আছেন।’

অপরদিকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে চারঘাট উপজেলায় বড়াল নদীতে পদ্মার মোহনায় দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে গোলাগুলির ঘটনায় ভারতীয় বাহিনী বিএসএফ আগে গুলি ছুঁড়েছিল। বিএসএফের গুলির পরিপ্রেক্ষিতে আত্মরক্ষার্থে গুলি করে বিজিবি। পরে এ ঘটনায় দুই বাহিনীর মধ্যে পতাকা বৈঠক হয়। পতাকা বৈঠক থেকে জানা যায়, গোলাগুলিতে বিএসএফ এর হেড কনস্টেবল বিজয়ভান সিংহ (৫১) মারা যান এবং রাজবীর যাদব আহত হন।

আরো পড়ুন

কে/সি

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়
  • বাংলাদেশ এর সর্বশেষ
  • বাংলাদেশ এর পাঠক প্রিয়