বিড়ির ওপর শুল্ক প্রত্যাহার চান শতাধিক সংসদ সদস্য

প্রকাশ | ২৪ মে ২০১৯, ২০:৫৮ | আপডেট: ২৫ মে ২০১৯, ২১:০২

আরটিভি অনলাইন ডেস্ক

আসন্ন বাজেটে বিড়ি শিল্পের শুল্ক ও অগ্রিম আয়কর প্রত্যাহারসহ শুল্ক কমানোর সুপারিশ করে অর্থ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে আধা সরকারি পত্র (ডিও লেটার) দিয়েছেন দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের শতাধিক সংসদ সদস্য। এসব জন প্রতিনিধি হতদরিদ্র বিড়ি শ্রমিকদের কর্মসংস্থান রক্ষায় অর্থমন্ত্রীকে গত এক মাস ধরে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের প্রতিনিধি হিসেবে ডিও লেটার দিয়েছেন। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

ডিও লেটারে এমপিরা বিড়ি শিল্পকে আদি কুটির শিল্প হিসেবে উল্লেখ করে বলেছেন, ‘বেশির ভাগ বিড়ি ফ্যাক্টরিগুলো গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে অবস্থিত। অন্যদিকে সিগারেট ফ্যাক্টরিগুলো শহরমুখী। বিড়ি শিল্পের অধিকাংশ শ্রমিকই নারী। এই নারী শ্রমিকদের বেশির ভাগই বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী। অতিরিক্ত শুল্ক আরোপের ফলে বিড়ি শিল্পগুলো বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। গ্রামের নারী শ্রমিকদের কর্মসংস্থানের জন্য যুগ যুগ ধরে বিড়ি শিল্প বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে আসছে। দেশের লাখ লাখ গ্রামীণ দরিদ্র বিড়ি শ্রমিকদের জীবন জীবিকার স্বার্থে আগামী ২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেটে বিড়ির ওপর শুল্ক বৃদ্ধি না করে শুল্ক কমানোর সুপারিশ করছি।’

এমন অনুরোধ করে অর্থ মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে ডিও লেটার দিয়েছেন, ঠাকুরগাঁওয়ের এমপি আলহাজ দবিরুল ইসলাম, জাহিদুর রহমান। নীলফামারী ১ আসনের এমপি আফতাব উদ্দিন সরকার, লালমনিরহাট-৩ আসনের এমপি গোলাম মোহাম্মদ কাদের, কুড়িগ্রাম-১ আসনের এমপি আছলাম হোসেন সওদাগর , কুড়িগ্রাম-২ আসনের এমপি পনির উদ্দিন আহমেদ, কুড়িগ্রাম-৩ আসনের এমপি এম এ মতিন, গাইবান্ধা-৩ এর এমপি ইউনুস আলী সরকার, গাইবান্ধা-৪ এর এমপি মনোয়ার হোসেন চৌধুরী।

এই তালিকায় আরো রয়েছেন, শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ্ (বগুড়া-২), নূরুল ইসলাম তালুকদার (বগুড়া-৩), মোশারফ হোসেন (বগুড়া-৪), হাবিবর রহমান (বগুড়া-৫), রেজাউল করিম বাবলু (বগুড়া-৭), হারুনুর রশীদ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩), শহীদুজ্জামান সরকার (নওগাঁ-২), ছলিম উদ্দীন তরফদার (নওগাঁ-৩), ইমাজ উদ্দিন (নওগাঁ-৪), ফজলে হোসেন বাদশা (রাজশাহী-২), শাহ্রিয়ার আলম (রাজশাহী-৬), শফিকুল ইসলাম শিমুল (নাটোর-২), তানভীর ইমাম (সিরাজগঞ্জ-৪), হাসিবুর রহমান স্বপন (সিরাজগঞ্জ-৬), হাসানুল হক ইনু (কুষ্টিয়া-২), সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার (ছেলুন) (চুয়াডাংগা-১), আলী আজগার (চুয়াডাংগা-২ ), শফিকুল আজম খাঁন (ঝিনাইদহ-৩), শেখ আফিল উদ্দিন (যশোর-১), বি, এম, কবিরুল হক (নড়াইল-১), মোজাম্মেল হোসেন (বাগেরহাট-৪), আব্দুস সালাম মূর্শেদী (খুলনা-৪), নুরুন্নবী চৌধুরী (ভোলা-৩), নাসরিন জাহান রতনা (বরিশাল-৬), অসীম কুমার উকিল (নেত্রকোনা-৩), কাজী ফিরোজ রশীদ (ঢাকা-৬), হাজী মো. সেলিম (ঢাকা-৭), ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ্ (ঢাকা-১৬), এ. কে. এম সেলিম ওসমান (নারায়ণগঞ্জ-৫), মোহাম্মদ সুবিদ আলী ভূঁইয়া (কুমিল্লা-১), মইন উদ্দীন খান বাদল (চট্টগ্রাম-৮ ), সালমা ইসলাম (মহিলা আসন-৪৪), মাসুদা এম, রশীদ চৌধুরী (মহিলা আসন-৪৫) সহ শতাধিক এমপি।

এদিকে আগামী বাজেটে বিড়ি শিল্পের ওপর ট্যাক্স কমানোর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ বিড়ি শ্রমিক ফেডারেশন, সারাদেশের তামাক চাষি ও ব্যবসায়ী সমিতি, বিড়ি ভোক্তা পক্ষ এবং বাংলাদেশ বিড়ি মালিক সমিতি। এ নিয়ে গত কয়েক মাস দেশের বিভিন্ন স্থানে সভা-সমাবেশ, মানববন্ধন, বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করতে দেখা গেছে। ফুঁসে উঠেছে বিড়ি শিল্প সংশ্লিষ্ট শ্রমিক, কর্মচারী ও ভোক্তারা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সকলের একটাই দাবি ‘বিড়ি শিল্প বাঁচান, শ্রমিক বাঁচান’।

সি