logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬

নরসিংদীতে একই পরিবারের চারজন দগ্ধ

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৫৭ | আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৮:২৬
ফাইল ছবি
নরসিংদীর রায়পুরায় ঘরে আগুন লেগে একই পরিবারের চারজন দগ্ধ হয়েছেন। আজ মঙ্গলবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। প্রথমে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে চিকিৎসকের পরামর্শে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, পাশের বাড়ির সাথে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষরা তাদের বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

দগ্ধ চার জন হলেন- তিনবোন ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী প্রীতি আক্তার (১১), অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী সুইটি আক্তার (১৩) ও এসএসসি পরীক্ষার্থী মুক্তামনি (১৬)। তাদের সঙ্গে আরও দগ্ধ হয়েছেন তাদের ফুফু খাতুন্নেছা (৬০)।

ঢাকা মেডিকেল বার্ন ইউনিটের মেডিকেল অফিসার ডা. এনায়েত কবির বলেন, রায়পুরা থেকে চার জন দগ্ধ রোগী এসেছে। তাদের সবার দুই হাতসহ মুখ ও শ্বাসনালী পুড়ে গেছে। এর মধ্যে খাতুন্নেছার শরীরের ১২ শতাংশ, প্রীতির ১৫ শতাংশ, মুক্তামনির ১০ শতাংশ ও সুইটির শরীরের ১৫ শতাংশ আগুনে দগ্ধ হয়েছে।

দগ্ধ মুক্তামনি জানান, প্রতিবেশী শিপন, কাজলদের সঙ্গে দীর্ঘ দিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। সেই বিরোধের জের ধরে কয়েক বছর আগে মিথ্যা হত্যা মামলা দেয়া হয় আমার দুই ভাই সোহাগ ও বিপ্লবের বিরুদ্ধে। তারা এখনও পালিয়ে বেড়াচ্ছে। গত ডিসেম্বরে বাবা (শামছুল হক) মারা যান। তারপর থেকে আমাদের মেরে ফেলার হুমকি দিতে থাকে তারা।

মুক্তমনি আরও জানান, মঙ্গলবার ভোরে যখন সবাই ঘুমিয়ে ছিলেন। তখন শিপন, কাজল, রবিন, লোকমানসহ কয়েকজন এসে তাদের ঘরে বোমা মেরে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এবিষয়ে রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসিনুল কবির বলেন, যারা দগ্ধ হয়েছেন, এলাকায় তাদের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে কোনো বিরোধ নেই বলেই জানি। কিছুদিন আগে এলাকায় পরপর দুইটি  মার্ডার হয়। সেই হত্যা মামলার আসামি এদের দুই ভাই সোহাগ ও বিপ্লব। সেই ঘটনার জের ধরে ঘটনাটি ঘটতে পারে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়