• ঢাকা বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

বাংলাদেশের পাশে থাকার অঙ্গীকার

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ২২ অক্টোবর ২০১৬, ১৬:৫১ | আপডেট : ২২ অক্টোবর ২০১৬, ১৮:২৩
বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কথা স্মরণ করে বাংলাদেশের পাশে থাকার অঙ্গীকার করলেন বিদেশি অতিথিরা। সে সঙ্গে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করলেন বিভিন্ন দেশের নেতারা।

whirpool
আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি বলেন, সোনার বাংলা গড়তে কাজ করছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ডিজিটাল বাংলাদেশের মাধ্যমে নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেছেন তিনি। দেশের উন্নয়নে তার অবদান প্রশংসনীয়।

দু’দেশের সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, দু’বাংলা আলাদা ভূ-খণ্ড। কিন্তু হৃদয় থেকে আমরা কখনোই আলাদা নই। আমরা সবসময়ই এক। আমাদের অনুপ্রেরণাও এক।

ভারতীয় জনতা পার্টির ভাইস প্রেসিডেন্ট বিনয় প্রভাকর বলেন, শেখ হাসিনা শুধু বাংলাদেশের জননেত্রীই নন, তিনি পুরো দক্ষিণ এশিয়ার জননেত্রী।

ভারতের কংগ্রেসের প্রতিনিধি গোলাম নবী আজাদ বলেন, বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ দমনের সংগ্রামে এ অঞ্চলের  গুরুত্বপূর্ণ নেতা শেখ হাসিনা।

রাশিয়ার সংসদ সদস্য সের্গেই জেলিজনিয়াক তার বক্তব্যে বলেন, আমরা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে অংশীদার হিসেবে বিবেচনা করি। সে সঙ্গে সম্মেলনে অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানানোর জন্য ধন্যবাদ জানান তিনি।

সম্মেলনের বিশেষ অতিথি অস্ট্রিয়ার ডেমোক্রেটিক পার্টির সংসদ সদস্য ফুকস বলেন, লিঙ্গ সমতা, নারীর ক্ষমতায়ন, সারা পৃথিবীর সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এখন বিশ্বজুড়ে রোল মডেল। সে সঙ্গে বাংলাদেশ সরকার ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি।

সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন চীনের কমিউনিস্ট পার্টির আন্তর্জাতিক বিভাগের ভাইস মিনিস্টার ঝেং জিয়াওজং, শ্র্রীলংকার ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির সংসদ সদস্য মোহাম্মদ হাশিম, নেপাল কমিউনিস্ট পার্টির ড. রাম শর্মা, অস্ট্রেলিয়ার লেবার পার্টির হিউ ম্যাকডার্মট, কানানিয়ান কনজারভেটিভ পার্টির নেতা দিপক ওবেরয়, যুক্তরাজ্যের জেনি রাথবোন, ভুটানের তথ্য ও যোগাযোগমন্ত্রী দিনা নাথ দাঙ্গিয়েল, ইতালির ডেমোক্রেটিক পার্টির নেতা ইওগো প্যাপি, ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির অব ইন্ডিয়ার নেতা বিমান বসু, ভারতের মিজোরাম রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাংগা ও রাজসভার সদস্য মাজেন মেনন।


এফএস/

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়