logo
  • ঢাকা মঙ্গলবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৯, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬

রেলস্টেশনে শেষ মুহূর্তের ভিড়, শিডিউল বিপর্যয়

আরটিভি অনলাইন রিপোর্ট
|  ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১৫:১০
ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাজধানী ছাড়ছেন ঘরমুখো মানুষ। যাতায়াতের মাধ্যম হিসেবে অনেকেই বেছে নিয়েছেন রেলপথ। তাই শেষ মুহূর্তের ভিড়ে সরগরম রেলস্টেশনগুলো। বৃষ্টির পাশাপাশি যাত্রীদের বিড়ম্বনায় যোগ হয়েছে ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয়।

শেষ দিনের ঈদযাত্রায় শিডিউল টাইম থেকে এভাবে পিছিয়ে পড়ছে একের পর এক ট্রেন। গড়ে দেরি হচ্ছে দেড় থেকে দুই ঘণ্টা।

শুক্রবার কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে খুলনার সুন্দরবন এক্সপ্রেস সাতটা ২০ মিনিটে ছাড়ার কথা থাকলেও সেটি ছেড়ে যায় নয়টা ২০ মিনিটে। রাজশাহীর ধূমকেতু এক্সপ্রেস সকাল ছয়টার বদলে কমলাপুর ছাড়ে সাতটা পাঁচ মিনিটে।

দেওয়ানগঞ্জগামী ঈদের বিশেষ ট্রেনটি ছাড়ার কথা সকাল পৌনে নয়টায়। ৫০ মিনিট দেরি করে ট্রেনটি ছেড়ে যায় সকাল নয়টা ৩৫ মিনিটে।

রংপুর এক্সপ্রেস নয়টায় ছাড়ার কথা থাকলেও কমলাপুরে আসতেই বেজে যায় দশটা। দিনাজপুরের একতা এক্সপ্রেস সকাল দশটায় রওনা হবার কথা থাকলেও সেটি সাড়ে দশটার পর ছাড়ে।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী জানান, নির্দিষ্ট সময়ে বেশ কিছু ট্রেন ছাড়লেও যাত্রী ওঠানামার ধীরগতিতে শিডিউল ঠিক রাখা সম্ভব হচ্ছে না। ট্রেনের শিডিউল একটু পিছিয়ে যাচ্ছে।

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, এগুলো দেরি করে ঢাকায় আসায় আবার ছাড়তেও দেরি হচ্ছে। তবে ছাদে বা বাফারে উঠতে তারা যাত্রীদের নিষেধ করছেন।

এরপরও যারা উঠছেন মানবিক কারণে তাদের নামিয়ে আনা যাচ্ছে না বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তবে কমলাপুরের চেয়ে ট্রেনে যাত্রীর চাপ বিমানবন্দর স্টেশনে বেশি। কমলাপুরে ৭টি প্লাটফর্ম যেখানে সেখানে বিমানবন্দরে মাত্র দুইটি। এরমধ্যে যাত্রী উঠতে ব্যবহৃত হয় একটি প্লাটফর্ম।

অনেকে টিকিট হাতে রেখেও ট্রেনের ভেতরে ঢুকতে পারছেন না। সুযোগ বুঝে বেশিরভাগ যাত্রী ট্রেন কমলাপুর আসার আগেই বিমানবন্দরে উঠে পড়ছেন।

কে/জেএইচ

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়