Mir cement
logo
  • ঢাকা রোববার, ২০ জুন ২০২১, ৬ আষাঢ় ১৪২৮

জলোচ্ছ্বাসে উপকূলীয় ৯ জেলার ২৭ উপজেলা ক্ষতিগ্রস্ত

জলোচ্ছ্বাসে উপকূলীয় ৯ জেলার ২৭ উপজেলা ক্ষতিগ্রস্ত
জলোচ্ছ্বাসে উপকূলীয় ৯ জেলার ২৭ উপজেলা ক্ষতিগ্রস্ত

ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ এর তাণ্ডব থেকে বাংলাদেশ রক্ষা পেলেও জলোচ্ছ্বাসে উপকূলীয় ৯ জেলার ২৭ উপজেলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বুধবার (২৬ মে) সকাল থেকে ভারতের উপকূল অতিক্রম করেছে ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’।

সচিবালয়ে সার্বিক ঘূর্ণিঝড় পরিস্থিতি বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে বুধবার (২৬ মে) দুপুরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান এ কথা জানান।

প্রতিমন্ত্রী জানান, সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুর জেলা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভোলার লালমোহন উপজেলায় গাছ চাপা পড়ে একজন মারা গেছেন।

ক্ষতিগ্রস্ত উপজেলাগুলোর মধ্যে রয়েছে- সাতক্ষীরার শ্যামনগর, আশাশুনি, খুলনার কয়রা, দাকোপ, পাইকগাছা, বাগেরহাটের শরণখোলা, মোংলা, মোড়েলগঞ্জ, মঠবাড়ীয়া, বরগুনার সদর, পাথরঘাটা, আমতলী, পটুয়াখালীর সদর, গলাচিপা, রাঙ্গাবালী, দশমিনা, মির্জাগঞ্জ, কলাপাড়া, ভোলার সদর, চরফ্যাশন, মনপুরা, তজুমদ্দিন, দৌলতখান, বোরহানউদ্দিন, নোয়াখালীর হাতিয়া, লক্ষ্মীপুরের রামগতি ও কমলনগর।

ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ তার গতিপথ পরিবর্তন করে বাংলাদেশ উপকূলে না এসে ভারতের ওরিশা উপকূল অতিক্রম করে ঝাড়খণ্ডে প্রবেশ করেছে। এতে বাংলাদেশ প্রবল আঘাতের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। ফলে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে দেশে তেমন কোনো ক্ষয়ক্ষতি না হলেও জোয়ারের পানিতে উপকূলীয় এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় এবং কয়েকটি বেড়িবাঁধ ভেঙে অনেক বাড়ি-ঘর, ফসলের ক্ষেত ও মাছের ঘের তলিয়ে গেছে।

এদিকে, ইয়াস সম্পর্কিত ১৭ নম্বর বিশেষ বুলেটিনে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় ইয়াস আরও উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে ভারতের উত্তর উত্তর ওড়িশা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূল অতিক্রম করে ঝাড়খণ্ডের দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

পি

RTV Drama
RTVPLUS