Mir cement
logo
  • ঢাকা শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮

হেফাজত নিষিদ্ধের দাবি করে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের স্মারকলিপি

রাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসার সামনে

উগ্র মতবাদ প্রচার-প্রসারের জন্যই ভারতের দেওবন্দ মাদরাসা প্রতিষ্ঠা হয়েছিল। আর কওমি মাদরাসার ছাত্র শিক্ষকরা সেই উগ্রপন্থীদের অনুসারী দাবি করেছে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত। সুন্নি মতাদর্শিক সংগঠনটি সম্প্রতি জঙ্গিবাদি ও রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ড পরিচালনার দায়ে হেফাজতে ইসলামকে নিষিদ্ধ করতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে।

রোববার (০২ মে) রাতে সংগঠনটির নেতারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাসভবনে গিয়ে এই স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, ‘উগ্র মতবাদ প্রচার-প্রসারের জন্যই ভারতের দেওবন্দ মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। কওমিরা সেই উগ্রপন্থী মাদরাসারই অনুসারী। গত প্রায় দেড় শতাব্দী ধরে পাক-ভারত উপমহাদেশে তারা বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দিয়ে মুসলমানদের মধ্যে বড় ধরনের ধর্মীয় বিভ্রান্তি তৈরি করেছে। বাংলাদেশে জামায়াত-হেফাজতীদের উগ্রবাদী কর্মকাণ্ডের কারণে সাধারণ মানুষের কাছে শান্তির ধর্ম ইসলাম সম্পর্কে বিরূপ মনোভাব প্রকাশ পাচ্ছে।’

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, ‘২০১৩ সালে ঢাকার শাপলা চত্বরে হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডব জাতি দেখেছে। বায়তুল মোকাররমে কোরআন শরীফে অগ্নিসংযোগ, বাসে-দোকানপাটে অগ্নিসংযোগ করে, আশেপাশে কয়েক কিলোমিটার এলাকার গাছপালা নিধন করে সেদিন এক নারকীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। এর সাথে ইসলামের দূরতম কোনো সম্পর্ক নেই। ইসলামের দৃষ্টিতে কারও জান-মাল-ইজ্জতে আঘাত করা হারাম। সরকারের সময়োপযোগী সাহসী পদক্ষেপের কারণে জাতি সেদিন বিপদ থেকে রক্ষা পায়।’

কওমি অঙ্গনের অতীত ইতিহাস তুলে ধরে স্মারকলিপিতে বলা হয়- এই কওমিরা আর জামায়াতিরাই একদিন ঘোষণা করেছিল- আমরা হবো তালেবান, বাংলা হবে আফগান। ইতোমধ্যে জাতির কাছে সুস্পষ্ট হয়েছে- সব কওমি জঙ্গি নয় কিন্তু সকল জঙ্গিই কওমি। জামায়াত-হেফাজতসহ কওমি সংগঠনগুলো আজ জঙ্গি প্রজনন ক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সরকারের এখনই কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে। হেফাজতে ইসলামের কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধ করতে হবে।

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের নির্বাহী মহাসচিব আ ন ম মাসউদ হোসাইনের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ ফকির মুসলিম উদ্দিন আহমদ, মুহাম্মদ আব্দুর রহমান, সৈয়দ মুহাম্মদ মোতাসিম বিল্লাহ রাব্বানী, যুগ্ম মহাসচিব কাজী আবু জাফর মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন, এম এ মোমেন, সাংগঠনিক সচিব মুহাম্মদ আবদুল মতিন স্মারকলিপি দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন।

এমকে

RTV Drama
RTVPLUS