সেই দ্বিতীয় বিয়ে ও উইলের বিষয়ে ৪ অ্যামিকাস কিউরির মতামত চান হাইকোর্ট

প্রকাশ | ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ২২:৩৩

আরটিভি নিউজ
আলোচনায় আসা ২ বোন

সম্প্রতি রাজধানীর গুলশান এলাকায় একটি বাড়ির সামনে অবস্থান করে আলোচনায় আসা ২ বোনের বাবা প্রয়াত মোস্তফা জগলুল ওয়াহিদের দ্বিতীয় বিয়ে এবং সেই স্ত্রীকে সম্পত্তি উইল করে দেওয়ার আইনগত বৈধতা বিষয়ে মতামত চান হাইকোর্ট। এ লক্ষ্যে ৪ আইনজীবীকে অ্যামিকাস কিউরি মনোনীত করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ ৪ অ্যামিকাস কিউরির নাম ঘোষণা করেন। 

নিয়োগকৃত অ্যামিকাস কিউরিরা হলেন, এ এফ হাসান আরিফ, কামাল-উল-আলম, কামরুল হক সিদ্দিকী এবং মো. নূরুল আমিন।

গুলশানের সংশ্লিষ্ট বিষয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে আসা প্রতিবেদন বিবেচনায় নিয়ে ২৬ অক্টোবর একই বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত রুলসহ আদেশ দেন। সেই অনুযায়ী সেদিন রাতে পুলিশ ২ বোনকে ওই বাড়িতে তুলে দেন এবং নিরাপত্তায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এরপর ২ বোন মুশফিকা ও মোবাশ্বেরা এবং তাদের বাবার দ্বিতীয় স্ত্রী আঞ্জু কাপুরের সম্পত্তি দাবির সপক্ষে কাগজপত্র আদালতে দাখিল করা হয়। এর ধারাবাহিকতায় আজ বিষয়টি ওঠে। শুনানি নিয়ে আদালত আগামী ১২ জানুয়ারি শুনানির পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন। এই সময় পর্যন্ত ২ বোনের নিরাপত্তা অব্যাহত রাখতে গুলশান থানার অফিসার ইনচার্জকে (ওসি) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আদালতে দুই বোনের পক্ষে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ এবং আঞ্জু কাপুরের পক্ষে আইনজীবী মাসুদ রেজা সোবহান শুনানিতে ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিন উদ্দিন মানিক।

পরে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ গণমাধ্যমকে বলেন, স্পেশাল ম্যারেজ অ্যাক্ট ১৮৭২ অনুসারে কোনো মুসলিম কোনো হিন্দু নারীকে বিয়ে করতে পারেন কি না এবং স্ত্রী হিসেবে তাকে জগলুল ওয়াহিদের বাড়ির উইল করে দেওয়ার আইনগত বৈধতা বিষয়ে মতামত দিতে ৪ আইনজীবীকে অ্যামিকাস কিউরি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সিটি ব্যাংকের গুলশান শাখায় জগলুল ওয়াহিদের ব্যাংক হিসাবের রেকর্ড দাখিল করতে নির্দেশ সংশ্লিষ্ট শাখা প্রধানকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এছাড়া স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, ইস্টার্ণ ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক   ও আইএফআইসি ব্যাংকে জগলুল ওয়াহিদের অ্যাকাউন্ট থাকলে এবং পক্ষগুলো স্টেটমেন্ট চাইলে তা সরবরাহ করতে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

কেএফ