logo
  • ঢাকা শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

আশুলিয়ায় আধিপত্য বিস্তার করছে কিশোর গ্যাং (ভিডিও)

চুরি, ছিনতাই, মাদক বেচা-কেনা থেকে শুরু করে খুন-ধর্ষণের মতো নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়েছে আশুলিয়ার কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। স্থানীয়দের অভিযোগ রাজনৈতিক মদদ আর গ্যাং কালচারের কারণেই প্রতিনিয়ত দীর্ঘ হচ্ছে এদের তালিকা। প্রশাসন বলছে, অভিযোগ পেলেই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গেলো ৩০ আগস্ট আশুলিয়ার ভাদাইল গুলিয়ারচক এলাকায় বেড়াতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হয় এক কিশোরী। ঘটনার ৩৫ দিন পর আটক করা হয় কিশোর গ্যাংয়ের মূল হোতা ডায়মন্ড আলামিনসহ শাহরুখ ও জাকিরকে। দু’দিনের রিমান্ড শেষে তিনজনকেই কারাগারে পাঠানো হয়।

এই ঘটনার পাঁচ দিন পর আশুলিয়ার পাথালিয়া উত্তর ওয়ালিয়া এলাকায়, মাদক বিক্রি ও সেবনে বাধা দেওয়ায় জাহাঙ্গীরনগর স্কুল এন্ড কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রাকিব দেওয়ানকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে কিশোর গ্যাং বাহিনীর সোহাগ ও তার সহযোগীরা। পরে হামলার বিচার চেয়ে মানববন্ধন করে ভুক্তভোগীর পরিবার ও শিক্ষার্থীরা।

কিশোর গ্যাংয়ের এমন নির্মমতা প্রতিদিনই বাড়ছে। এতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী। এলাকাবাসী এবং  স্থানীয়রা জানায়, আগে মানুষ চোর ডাকাতের কথা শুনে ভয় পেত আর এখন কিশোর গ্যাং এর ভয়ে থাকে। কোনো গার্মেন্টসের মেয়েরা ঠিকভাবে চলাচল করতে পারে না এদের ভয়ে। প্রতিদিন ঘটে  ছিনতাইয়ের মতো ঘটনা।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার ইমাম হাসান ভূইয়া বলেন, প্রচলিত আইন অনুযায়ী তাদেরকে মৃত্যুদণ্ড বা যাবত-জীবন দেওয়া যায় না। এ কারণে কিছু মহল নানা অপরাধ সংগঠিত করতে তাদের ব্যবহার করছে।

শুধু কিশোর গ্যাংই নয় মদদদাতাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার আহ্বান সচেতন মহলের। আশুলিয়ার সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি লায়ন মো. ইমাম হোসেন বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আমার বিশেষ অনুরোধ থাকবে, ১৮ বছরের নিচে বাচ্চাদের কারা পৃষ্ঠপোষকতা করে। এদের পেছনের মদদদারাতা কারা। এগুলো নিয়ে যেন ব্যবস্থা গ্রহণ করে।

অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানালেন, পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসেন সরদার। তিনি বলেন,আমাদের এই সংক্রান্ত কোনো মামলা বা অভিযোগ কখনও কেউ করেনি। যদি এ রকম ঘটনার অভিযোগ পাওয়া যায় তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নিবো।

কিশোর গ্যাং এবং তাদের মদদদাতাদের আইনের আওতায় আনতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আরও তৎপর হবে এমন প্রত্যাশা এলাকাবাসীর।

এম

RTVPLUS