‘জাতীয় দলে ফিরতে মেসিকে চাপ দেয়া হবে না’

প্রকাশ | ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:৫২ | আপডেট: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:৫৩

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন

লিওনেল মেসি জাতীয় দল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য সরে গেছেন। তবে তিনি অবসরে যাননি। কবে অবসরে যাবেন কিংবা আদৌ আর ফিরবেন কিনা তাও জানাননি। তবে মেসি সরে যাওয়ার আগে জানিয়েছিলেন এ বছর আর্জেন্টিনার হয়ে আর কোনও ম্যাচ খেলবেন না তিনি। অপর দিকে মেসিকে দলে ফেরাতে কোনোরকম চাপ প্রয়োগ করবে না বলে জানিয়েছেন আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ক্লাওদিও তাপিয়া। 

তাপিয়া মনে করেন, পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার দেশকে অনেক কিছু দিয়েছেন এবং বিপরীতে অনেক কম পেয়েছেন।

ফ্রান্সের কাছে দ্বিতীয় রাউন্ডে পরাজয়ে দল ছিটকে পড়ার পর অনেকে যখন ভেবেছিল রাশিয়া বিশ্বকাপ শেষে আন্তর্জাতিক ফুটবলকে বিদায় বলতে পারেন মেসি। কিন্তু ওই পরাজয়ের পর জাতীয় দলের হয়ে নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে এখন পর্যন্ত মুখ খোলেননি পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। এরপর থেকেই আন্তর্জাতিক ফুটবলে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য বিরতিতে আছেন বার্সেলোনার এই তারকা খেলোয়াড়। 

মেসি প্রসঙ্গে তাপিয়া বলেন, আমাদের কৃতজ্ঞ থাকতে হবে। তিনি জাতীয় দলের জন্য অনেক করেছেন। আর আমরা সম্ভাব্য সবচেয়ে বাজেভাবে তাকে এর প্রতিদান দিয়েছি। 

এদিকে শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ৯টায় লস অ্যাঞ্জেলেসে প্রীতি ম্যাচে গুয়াতেমালার মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা। ঠিক এর চার দিন পর নিউ জার্সিতে কলম্বিয়ার বিপক্ষে খেলবে দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। মেসি না থাকায় দলের নেতৃত্ব দেবেন ইনজুরির কারণে বিশ্বকাপ স্কোয়াড থেকে ছিটকে পড়া গোলরক্ষক সার্জিও রোমেরো। 

তবে তিনি না থাকলে অধিনায়কের আর্মব্যান্ড চলে যাবে আয়াক্স ডিফেন্ডার নিকোলাস তাগলিয়াফিকোর কছে বলে জানিয়েছে সংবাদ মাধ্যমে খবর। এ ম্যাচ দুটিতে মেসির অনুপস্থিতিতে দল টের পাবে বলে জানিয়েছেন আর্জেন্টিনার অন্তবর্তীকালীন কোচ লিওনেল স্কালোনি।

টিওয়াইসি স্পোর্টসকে স্কালোনি বলেন, আমরা তাকে মিস করি। তবে আমাদেরকে তাকে শান্তিতে থাকতে দিতে হবে। পরিবার ও জীবনকে তার উপভোগ করতে হবে। পরে কী হয় সেটা আমরা দেখব। 

৩১ বছর বয়সী লিওনেল মেসি এখন পর্যন্ত দলের হয়ে ১২৮ ম্যাচ খেলে ৬৫ গোল করেছেন। এই সময় তিনি চারবার বিশ্বকাপ ও আটবার কোপা আমেরিকা খেললেও জাতীয় দলের হয়ে বড় কোনও শিরোপা জিততে পারেননি। তবে তার ক্যারিয়ারে সবচেয়ে দাগ কাটে ২০১৪ বিশ্বকাপে অধিনায়ক হিসেবে জার্মানির কাছে পরাজিত হয়ে শিরোপা ছুঁয়ে দেখতে না পারা। পরে আরও দুটি কোপার ফাইনালে গেলেও শিরোপা ছুঁয়ে দেখতে পারেননি। তাই শেষ পর্যন্ত অবসরে চলে যান তিনি। কিন্তু ফুটবলপ্রেমী ও দেশের প্রেসিডেন্টের হস্তক্ষেপে অবসর ভেঙে দলে ফেরেন তিনি। 

আরও পড়ুন :

এএ/জেএইচ