• ঢাকা শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

ইকার্দির স্ত্রীর সঙ্গে হোটেলে রাত কাটান ম্যারাডোনা!

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ২৩ আগস্ট ২০১৮, ১৫:৩৩ | আপডেট : ২৩ আগস্ট ২০১৮, ১৭:০৭
বিশ্বকাপ স্কোয়াডে মাউরো ইকার্দির সুযোগ না মেলায় কঠোর সমালোচনায় পড়তে হয়ছিল আর্জেন্টিনা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনকে (এএফএ)। গেলো মৌসুমে ইতালিয়ান সিরি আ’র সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েও ছিলেন না রাশিয়া যাত্রায়। কেঁচো খুড়তে গিয়ে সাপ বের করে আনে দেশটির সাংবাদিকরা। 

সংবাদ প্রকাশ করা হয়, খেলোয়াড়রাই দলে চান না ইকার্দিকে, যার পেছনে ছিলেন ইকার্দির স্ত্রী ওয়ান্ডা নারা। আর্জেন্টিনার মিডিয়ায় পরিচিত মুখ ও ফুটবল এজেন্ট ছিলেন দেশটির ফুটবলার ম্যাক্সি লোপেজের স্ত্রী। আলবিসেলেস্তেদের জার্সিতে না খেললেও বার্সালোনা ও রিভার প্লেটে খেলার কারণে মেসি এবং মাসচেরানোর সঙ্গে সুসম্পর্ক ছিল লোপেজের। 

নারার সঙ্গে ইকার্দির সম্পর্কের কারণে লোপেজের ঘর ভাঙে। এনিয়ে ব্যাপক আলোচনাও হয়েছিল সেসময়। মজার বিষয় হচ্ছে ব্যক্তিগত সমস্যায় হস্তক্ষেপ করেছিলেন দেশটির কিংবদন্তি ডিয়েগো ম্যারাডোনাও। ইকার্দিকে ‘বিশ্বাস ঘাতক’ বলে তিরস্কারও করেন ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপ জয়ী।  

ইকার্দিও কম জাননি। ফুটবলের ইতিহাসে সর্বকালের সেরা তারকাকে জবাব ঠিকই দিয়েছিলেন। এবার নতুন তথ্য দিয়ে বোমা ফাটিয়েছেন দেশটির টেলিভিশনের জনপ্রিয় হোস্ট মির্থা লেগ্র্যান্ড।

-------------------------------------------------------
আরও পড়ুন :শুরু হচ্ছে নক আউট পর্ব, নির্ভার বাংলাদেশ
-------------------------------------------------------

৭২ বছর বয়সী মির্থা সম্প্রতি জানান, ২০০৬ সালের আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সে একটি হোটেলে অবস্থান করছিলেন তিনি। আর তার পাশের রুমেই উঠেছিলেন ম্যারাডোনা ও সে সময়ের উঠতি মডেল নারা। ১৮ বছর বয়সী নারার সঙ্গে ম্যারাডোনা রুমের ভেতরে আসবাবপত্র বারবার সরাচ্ছিলেন। আর যার কারণে পাশের রুম থেকে সেই শব্দ শুনে ঘুম ভেঙে যায় মির্থার।

স্ত্রী নারার সঙ্গে ইকার্দি

মির্থাকে নারা জিজ্ঞাসা করেছিলেন, কেন তার প্রোগ্রামে আমন্ত্রণ জানানো হয় না? 

এমন প্রশ্ন শুনে বিস্মিত হন মির্থা। নারাকে তিনি বলেন, তুমি তো ম্যারাডোনার সঙ্গে হোটেলে ছিলে। তোমরা আমাকে রাতে ঘুমোতেও দাওনি।

ওই ঘটনার দুই বছর পর লোপেজের সঙ্গে বিয়ে হয় নারার। তখন আর্জেন্টাইন মিডিয়ায় তিনি ব্যাপক জনপ্রিয় ছিলেন।

বিয়ের পাঁচ বছরের মাথায় ২০১৩ সালের লোপেজের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার আগেই ইকার্দির সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান আর্জেন্টিনা ফুটবলের অন্যতম আলোচিত এই নারী।

২০১৪ সালে ইকার্দি-ওয়ান্দা বিয়ে করেন। নিজের আত্মজীবনিতে ইকার্দি দাবি করেছেন, লোপেজের সাথে বৈবাহিক সম্পর্ক থাকা অবস্থায়ই ওয়ান্দা তার সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়ানোর চেষ্টা করেন। এর মধ্যে নাকি ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে একবার বড় সমুদ্র ভ্রমণের জন্যও আমন্ত্রণ জানান নারা। 

আরও পড়ুন :

ওয়াই/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়