যৌন কেলেঙ্কারিতে বরখাস্ত জাপানের চার অ্যাথলেট

প্রকাশ | ২০ আগস্ট ২০১৮, ২২:১৫ | আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৮, ২২:২৬

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন

রাশিয়া বিশ্বকাপে পুরো বিশ্বের প্রশংসা আদায় করে নিয়েছিল জাপান। প্রতিটি ম্যাচ শেষে গ্যালারি পরিষ্কার করা এবং শেষ ম্যাচে পরাজয়ের পরও খেলোয়াড়ররা ড্রেসিংরুম পরিষ্কার করায় বিশ্বজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়। এবার সেই জাপানি খেলোয়াড়রাই দেশের গায়ে কলঙ্কের তিলক পরিয়ে দিল এশিয়ান গেমসে। তবে ফুটবলাররা নয় ঘটনাটি ঘটিয়েছেন চারজন বাস্কেটবল খেলোয়াড়র। 

গত বৃহস্পতিবার কাতারের বিপক্ষে জয়কে একটু বেশি উপভোগ করতে গিয়ে জাতীয় দলের জার্সি গায়েই ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তার কুখ্যাত নিষিদ্ধ পল্লীতে চলে যান। সেখানে গিয়ে মদ্যপানের পাশাপাশি যৌনকর্মী ভাড়া করে হোটেলে নিয়ে আসেন ওই চার খেলোয়াড়। পরে খেলোয়াড়রা হোটেল ঘরে দেহ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় ধরা পড়েন। 

সোমবার সংবাদমাধ্যমে বিষয়টি প্রকাশিত হওয়া পর তাদের দেশে ফিরিয়ে নেয় জাপান অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন। অভিযুক্ত চার জাপানি বাস্কেটবল দলের সদস্যরা হলেন- ইয়া নাগায়োশি, তাকুয়া হাসিমোতা, তাকুমা সাতো, কেইটা ইমামুরা। 

বাস্কেটবল খেলায় ৫ জন কোর্টে থাকেন, ৭ জন থাকেন বেঞ্চে। জাপানের হাতে এখন বদলি হিসেবে নামানোর জন্য মাত্র তিনজন খেলোয়াড় অবশিষ্ট থাকলেন। ২ বার সোনা ও ৬ বার এই ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জেতা জাপান তবু এ বিষয়ে এতটুকু ছাড় দিতে রাজি নয়। 

অ্যাসোসিয়েশনের এক কর্মকর্তা জানান, চার বাস্কেটবল খেলোয়াড়দের দেশে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এঘটনা জাপানের জন্য অত্যন্ত লজ্জাজনক বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আগামী দুই বছর পর টোকিওতে আয়োজিত হতে যাওয়া অলিম্পিক আসরের অন্যতম ব্যবস্থাপক ইয়াসুহিরো ইয়ামাশিতা সংবাদ মাধ্যমের কাছে এ ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন।

তিনি বলেন, বিষয়টি জেনে আমার লজ্জা হচ্ছে। এজন্য আমি ক্ষমা চাইছি। সেইসঙ্গে কথা দিচ্ছি এখন থেকে অ্যাথলেটদের জন্য বিধিনিষেধ ঠিক করে দেয়া হবে।

কাতারের বিরুদ্ধে ৮২-৭১ তে ম্যাচ জয়ের পর বেশ ফুরফুরে মেজাজেই ছিল জাপানের বাস্কেটবল দল। সেই দিন রাতে ডিনারের পর গেমস ভিলেজ থেকে লুকিয়ে পালিয়ে ওই চার খেলোয়াড় দেহ ব্যবসায়ীদের নিয়ে হোটেলে ওঠে বলে খবর। জাপানর সংবাদসংস্থার খবর, দেহ ব্যবসায়ীদের টাকাও দেন ওই চার খেলোয়াড়। জাপানের এক সাংবাদিক ওই খেলোয়াড়দের দেখে ফেলেন বলে জানা যায়। গতবার এশিয়ান গেমসে ব্রোঞ্জ জিতেছিল জাপানের বাস্কেটবল দল।

এদিকে জাপান বাস্কেটবল দলের প্রধান ইউকো মিতসুয়া এক বার্তায় জানিয়েছেন, এ ঘটনার জন্য জাপানের মানুষের কাছে আমি ক্ষমা চাইছি। সেইসঙ্গে আমাদের বাস্কেটবল খেলার সমর্থক এবং জাপান অলিম্পিক কমিটির কাছেও ক্ষমা চাইছি।

দেশে ফেরত পাঠানো ছাড়াও এই চার খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে মনে করা হচ্ছে। পরবর্তীতে এ ধরনের ঘটনা যাতে আর না ঘটে সে ব্যবস্থাও নেয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত এশিয়ান গেমসেও জাপান চুরির ঘটনায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে। সাঁতারু নাওয়া তোমিতা এক সাংবাদিকের ক্যামেরা চুরি করে ধরা পড়েন। তাৎক্ষণিকভাবে তাকে বরখাস্ত করে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়।

এএ/এমকে