• ঢাকা বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে রিয়াসাতের ইউরোপ লিগে অভিষেক

স্পোর্টস ডেস্ক, আরটিভি অনলাইন
|  ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৭:৪৮ | আপডেট : ২০ আগস্ট ২০১৮, ১৮:০০
রিয়াসাত ইসলাম খাতন
এশিয়ান গেমসের ইতিহাসে বাংলাদেশ ফুটবল দল প্রথমবারের মতো নক আউট পর্বে উঠেছে। এটা যেন দেশবাসীকে ফুটবলারদের দেয়া ঈদ উপহার। এর আগের দিন অর্থাৎ ১৮ আগস্ট বাঙালির আরেকটি ইতিহাস সৃষ্টি হয়। যদিও তা জানা যায় একদিন পর। ইতিহাসটি হল প্রথমবারের মতো ইউরোপের কোনও লিগের শীর্ষ পর্যায়ে অভিষেক হয়েছে কোনও বাংলাদেশির। ওয়েলশ প্রিমিয়ার লিগে গত পরশু মাঠে নেমেছিলেন রিয়াসাত ইসলাম খাতন।
 
১৯৮৯ সালে ঢাকায় জন্ম নেয়া রিয়াসাত ছোটবেলায় পরিবারের সঙ্গে জার্মানিতে পাড়ি জমান। তবে রিয়াসাতের লক্ষ্য ছিল জন্মভূমির জার্সিতে খেলবেন তিনি। ২০১৩ সালে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দিলেও চোটের কারণে মূল স্কোয়াডে সুযোগ পাননি তিনি। তবে ২০১৫ সালে ঠিকই সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে একটি আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে তৎকালীন ডাচ কোচ লোডভিক ডি ক্রইফের অধীনে বাংলাদেশ দলের মূল স্কোয়াডে জায়গা করে নিয়েছিলেন। কিন্তু লাল-সবুজের জার্সিটা গায়ে জড়াতে পারেননি। এবার রিয়াসাত ইউরোপের অন্যতম শীর্ষ লিগে দ্বিতীয় বাংলাদেশি হিসেবে মাঠে নেমে ইতিহাস গড়লেন। 

এর আগে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ইউরোপের শীর্ষ লিগে অভিষেক হয় হামজা দেওয়ান চৌধুরী নামে এক বাংলাদেশির। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে লেস্টার সিটির হয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সালে ইংলিশ ক্লাব লিভারপুলের বিপক্ষে খেলেন তিনি। সেদিন হামজা তার অভিষেকটা জয় দিয়ে রাঙিয়ে নেন। ১৯৯৮ সালে ইংল্যান্ডের লেস্টারশায়ারে জন্ম নেন হামজা। বেড়ে উঠেছেন সেখানেই। মা ক্যারিবিয়ান। তবে বাবা বাংলাদেশি।

                                                                            হামজা দেওয়ান চৌধুরী

রিয়াসাতের শৈশব ও কৈশোর পার হয়েছে জার্মানিতে। বেড়ে উঠেছেন ফ্রেইবুর্গের একাডেমিতে। তার পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ার তেমন সাফল্যমণ্ডিত নয়। লাল-সবুজের জার্সি গায়ে না জড়াতে পারলেও বাংলাদেশের সঙ্গে ইউরোপিয়ান ফুটবলের সম্পর্ক গড়ে দেন তিনি। গত পরশু চেফন ড্রুইডসের বিরুদ্ধে লানেল্লি টাউনের হয়ে ম্যাচের ৯০ মিনিটে বদলি হিসেবে মাঠে নামেন রিয়াসাত। আর মাঠে নেমেই জয়ের মাধ্যমে নিজের অভিষেকটা উদযাপন করেন। নির্ধারিত সময়ে ২-২ সমতায় থাকা ম্যাচ যোগ করা সময়ের পেনাল্টিতে জয় পায় তার দল।

ইতিহাস গড়ার আনন্দ ফেসবুকে জানিয়ে রিয়াসাত লেখেন, ইতিহাসে লেখা থাকবে এটি। বাংলাদেশের ইতিহাসেও এটি লেখার মতই কিছু। 

এএ/এমকে

  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়